এক মাস পিছিয়ে গেল সিএফএল ফাইনাল

কলকাতা : অক্টোবরের বদলে নভেম্বর। এক মাস পিছিয়ে গেল কলকাতা লিগের ফাইনালের দিনক্ষণ। ১৮ অক্টোবরের পরিবর্তে তা আয়োজিত হবে ১৮ নভেম্বর। ফাইনাল যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গণে আয়োজনের ব্যাপারে মরিয়া ছিলেন আইএফএ কর্তারা। তাদের সেই পরিকল্পনায় সিলমোহর পড়ল।

লিগের সেমিফাইনাল দর্শকশূন্য মাঠে আয়োজন করতে হলেও ফাইনালে যুবভারতীতে দর্শক উপস্থিতির ব্যাপারে নিশ্চয়তা দিয়েছেন আইএফএ সচিব জয়দীপ মুখোপাধ্যায়। বলেছেন, মাঠে দর্শক সমাবেশ এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে একটু সমস্যা হচ্ছিল। ২৬ অক্টোবরের আগে যুবভারতী পাওয়া সম্ভব নয়। মহমেডান-রেলওয়ে এফসি দুদলের কর্তারা আইএফএ শিল্ডের কথা মাথায় রেখে ফুটবলারদের ছুটি দিতে চাইছিলেন। নয়তো শিল্ডে তাদের খেলা নিয়ে সংশয় তৈরি হচ্ছিল। আমরা সেই পরিস্থিতি বিবেচনা করে ফাইনাল ১৮ নভেম্বর যুবভারতীতে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

- Advertisement -

দুদলের কর্তারাও আইএফএ-র সিদ্ধান্তের সঙ্গে সহমত। মহমেডানের তরফে ইতিমধ্যে তাদের কোচিং স্টাফ সহ ফুটবলারদের ১২ দিনের ছুটি দেওয়া হয়েছে। ২৯ অক্টোবর থেকে ফের অনুশীলন শুরু করবেন মার্কাস জোসেফরা।

৪০ বছর পর মহমেডানের সামনে এবার কলকাতা লিগ জেতার সুযোগ। অপরদিকে ময়দানের দ্বিতীয় রেল দল হিসেবে রেলওয়ে এফসির সামনে ১৯৫৮-র ইস্টার্ন রেলের লিগ জেতার নজির স্পর্শের হাতছানি। লিগের ফাইনাল ঘিরে দুদলের কর্মকর্তা, বিশেষ করে মহমেডান সমর্থকদের মনে উৎসাহ তুঙ্গে। তারা যাতে সেই মুহূর্তটুকু মাঠে বসে উপভোগ করতে পারেন, তা নিশ্চিত করা প্রধান লক্ষ্য বলে জানান আইএফএ সচিব।

ফাইনালে তিরিশ থেকে চল্লিশ হাজার সাদা-কালো সমর্থক সহ দুদলের কর্তারা মাঠে উপস্থিত থাকবেন বলে দাবি আইএফএ সচিবের। পাশাপাশি সন্তোষ ট্রফির জন্য ২০ অক্টোবর থেকে রবীন্দ্র সরোবর স্টেডিয়ামে বাংলার দলের ট্রায়াল শুরু হচ্ছে।