১০০ কোটির নিকাশি প্রকল্পের কাজ হয়নি

- Advertisement -

চাঁদকুমার বড়াল, কোচবিহার : মঙ্গলবার রাত থেকে টানা বৃষ্টিতে কোচবিহার শহরের বেহাল নিকাশি ব্যবস্থার ছবিটা ফের একবার বেরিয়ে পড়ল। বুধবার কোচবিহার শহরের প্রায় সমস্ত রাস্তা এবং ২০টি ওয়ার্ডে জল জমে যায়। এতে শহরের বাসিন্দারা ব্যাপক সমস্যায় পড়েন। নাগরিকদের একটি বড় অংশ পুরসভার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আর এসবের মাঝেই কোচবিহার পুরসভা প্রায় ১০০ কোটি টাকার যে নিকাশিনালার প্রকল্প নিয়েছিল, সেই কাজ কেন হল না সেই প্রশ্ন উঠছে। শহরে আধুনিক নিকাশি ব্যবস্থা কবে তৈরি হবে-সেই প্রশ্ন উঠেছে।

বুধবার কোচবিহার শহরের সিলভার জুবিলি রোড, সুনীতি রোড, কেশব রোড থেকে শুরু করে প্রায় সমস্ত রাস্তায় জল আটকে যায়। রাস্তা এবং পাশের নর্দমা মিলেমিশে একাকার হয়। এতে হেঁটে যাতায়াত প্রায় বন্ধ হয়ে যায়। এমনকি গাড়ি নিয়ে যাতায়াত করতে বেগ পেতে হয়। শহরের ১, ৩, ১৮, ১৯ সহ বিভিন্ন ওয়ার্ডে কমবেশি জল জমে বাসিন্দারা সমস্যায় পড়েন। তাঁরা অনেকেই এই পরিস্থিতির জন্য পুরসভাকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন। কোচবিহার শহর হেরিটেজ শহর। এই শহরের বিভিন্ন কাজের মধ্যে শহরের নিকাশি ব্যবস্থার উন্নয়নে আধুনিক নর্দমা তৈরির পরিকল্পনা প্রায় দুই বছর আগে নেওয়া হয়েছিল। প্রায় ১০০ কোটি টাকার এই প্রকল্পের কনটুর প্ল্যান করে রাজ্যেও পাঠিয়েছে কোচবিহার পুরসভা। কিন্তু সেই কাজ এখনও কিছুই হয়নি। শহরে আধুনিক নিকাশি ব্যবস্থা তৈরি হলে এদিন যে পরিস্থিতি হয়েছে তা হত না বলে নাগরিকরা মনে করছেন।

কোচবিহার পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান ভূষণ সিং বলেন, শহরে নিকাশি ব্যবস্থা নিয়ে যে প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছিল তার অনুমোদন এখনও আসেনি। অনুমোদন মিললে কাজ হবে। নদীর জল বাড়ার আশঙ্কায় স্লুইস গেটগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। তাই জল আটকে যায়। পরে গেটগুলি খুলে দেওয়া হয়েছে। জল নেমেছে। কিন্তু টানা বৃষ্টি হওয়ার ফলে জল কিছুটা জমে গিয়েছে। বিজেপির কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতী রাভা বলেন, কোচবিহার শহরে নিকাশি নিয়ে কোনও পরিকল্পনাই করা হয়নি। তার ওপর আবার বিভিন্ন নর্দমার ওপরে দোকান বসিয়ে দেওয়া হয়েছে। অবৈধ নির্মাণ হয়েছে। তৃণমূলের বোর্ডের সময় কোনও কাজই করা হয়নি। ওরা শুধু নিজেদের আখের গুছিয়েছে।

- Advertisement -