দক্ষিণ দিনাজপুরে করোনা সংক্রামিত আরও ১০২

825

সুবীর মহন্ত, বালুরঘাট: দক্ষিণ দিনাজপুরে আরও ১০২ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিস মিলল। স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে খবর, গত ৬ ও ৭ সেপ্টেম্বর সংক্রামিতদের লালার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ভিআরডিএলে পাঠানো হয়েছিল। সেখান থেকে এদিন ৮৪ জনের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। তবে বাকি ১৮ জন অ্যান্টিজেন ও ট্রুনাট টেস্টের মাধ্যমে করোনা ধরা পড়েছে।

এদিন মালদা মেডিকেল থেকে আসা ৮৪ জনের পজিটিভ রিপোর্টের মধ্যে বালুরঘাট শহরের ৬ জন (চকভবানিতে ৩ জন, কংগ্রেসপাড়া, সাহেবকাছারি, ব্রিজকালী পাড়ায় একজন করে) ও বালুরঘাট ব্লকের ১৫ জন (জলঘর ৪ জন, মুস্তাফাপুরে ৩ জন, মামনাতে ৩ জন, কুয়ারণে ৩ জন, একমাইল-অমৃতখন্ড একজন করে) সংক্রামিত হয়েছেন।

- Advertisement -

এছাড়াও হিলির ১৪ জন (ফতেপুর ও খারুন ৩ জন করে, চকদপুট ও উজালে ২ জন করে এবং আগ্রা, বৈকুণ্ঠপুর, ডুমরণ, রায়নগরে একজন করে), বংশিহারি ব্লকের ৯ জন (বিশ্বনাথপুর ৮ জন, টেপরিদহ একজন), কুশমণ্ডির চাঁন্দইল এলাকার একজন, কুমারগঞ্জের ১৬ জন (বটুন-সফরপুর, গ্রামীণ হাসপাতাল, বটুন-রাধাকৃষ্ণপুর, বেলতারা, চকগোপাল, চকজয়ন্তী, চকমোহন, খরাইল, মাধবপুর, নেওনা, পিরোজপুর, পোড়াহার, সফরপুর), তপন ব্লকের চ্যাচড়াকুড়ির ৮ জন, গঙ্গারামপুর ব্লকের ৬ জন (শ্রীরামপুর, আমগাঁও-নারই, গঙ্গারামপুর, কাদিহাট), গঙ্গারামপুর শহর এলাকার ২ জন (দত্তপাড়া, ইন্দ্রনারায়ণ), হরিরামপুরের ৭ জন (গোকর্ণ-খারুয়া, শ্যামগঞ্জ, নাহিট, বড়ভিটা) সংক্রামিত হয়েছেন।

এই নিয়ে জেলায় এখনও পর্যন্ত সংক্রামিতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪,১৯৩ জন। এদিন জেলায় ৫১ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখনও পর্যন্ত জেলায় সুস্থ হয়েছেন ৩,৭৭৮ জন। এদিনের সংক্রামিতদের চিকিৎসার উদ্যোগ নিচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। এদিকে, জেলার কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে আরও তিনদিনের জন্য আংশিক লকডাউনর সময়সীমা বৃদ্ধি করল জেলা প্রশাসন। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত এই এলাকাগুলিতে বিধি নিষেধ শিথিল করা থাকবে। বাকি সময় এই এলাকায় লকডাউন চলবে। ফের জেলার ৩ শহরেরই হাট-বাজার এলাকাগুলিতেই শুধুমাত্র কনটেনমেন্ট জোন রাখা হয়েছে। এছাড়াও তপনের হযরতপুর বাজার, তপন চন্ডিপুর মেইন বাজার, হরসুরা গ্রাম পঞ্চায়েতের রামপুর বাস স্ট্যান্ড, রামপুর হাট, মালঞ্চ গ্রাম পঞ্চায়েতের বালাপুর গ্রামীণ হাট, রামচন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ভিকাহার গ্রামীণ হাটকে কনটেনমেন্ট জোনের আওতায় রাখা হয়েছে। গঙ্গারামপুর ব্লকের নয়াবাজার, তিলনা, রতনপুর, মহারাজপুর, ঠেঙ্গাপাড়া, সুকদেবপুর ,ফুলবাড়ি, প্রাণ সাগর ও সর্বমঙ্গলা মার্কেটকে কনটেনমেন্ট জোনের আওতায় রাখা হয়েছে।