মাস্ক না পরায় আটক ১১

পতিরাম: করোনা ও লকডাউনের আবহে পতিরাম ও পার পতিরাম এলাকায় পতিরাম তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশের কঠোর অভিযান চলছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ব্যাপক অভিযান চালায় পুলিশ। মাস্ক না পরা ও স্বাস্থ্যবিধি না মানার কারণে ১১ জন ব্যক্তিকে পতিরাম পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে এসে দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখার পর মুচলেকায় স্বাক্ষর নেওয়ার পর ছাড়া হয়।

পাশাপাশি মঙ্গলবার নির্ধারিত সময়ের পর দোকান খুলে রাখা ও মাস্ক না পরে ব্যবসা চালানোর জন্য পতিরাম পুলিশের তরফে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযানের নেতৃত্ব দেন পতিরাম পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের নতুন ওসি সঞ্জয় মুখার্জী। তার সঙ্গে ছিলেন অন্যান্য পুলিশ আধিকারিক ও বেশ কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ার। তবে পুলিশের ভয়ে অকারণে রাস্তাঘাটে ও বাজারে আড্ডা দেওয়া মানুষের সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে কমে গিয়েছে।

- Advertisement -

এদিন পতিরাম চৌরঙ্গী মোড়, তালতলা মোড় বাসস্ট্যান্ড, পার পতিরাম বাজার, বিএসএফ ক্যাম্প এলাকায় জোরদার অভিযান চালায় পুলিশ। ওসি সঞ্জয় মুখার্জীর নেতৃত্বে বেআইনি যানবাহন বিশেষত টোটো, সাইকেল, অটো, বাইক ইত্যাদি যানবাহন তল্লাশি চালায় পুলিশ। মাস্ক-হেলমেট না থাকলে সরাসরি নিয়মভঙ্গকারীদের ধরে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। লাঠি হাতে পুলিশের রুদ্র মূর্তি দেখে মাস্ক না পরা মানুষজন পালিয়ে যান।

বেআইনিভাবে চলা টোটোর চালকরা পুলিশের লাঠির ভয়ে টোটো নিয়ে পালিয়ে যান। কেউ কেউ মাস্ক না পরে পকেটে বা ব্যাগে নিয়ে ঘুরেছেন। পুলিশ এই ধরণের মানুষজনকে ধরে মাস্ক মুখে পরিয়ে প্রতিজ্ঞা করিয়ে তবেই ছেড়েছেন। পার পতিরামের এক দোকানদার মাস্ক না পরে এবং নির্ধারিত সময়ের পরে দোকান খুলে ব্যবসা করায় তাঁর দোকান বন্ধ করে পতিরাম পুলিশ কেন্দ্রে নিয়ে আসে পুলিশ। পরে তাঁর নামে নিয়মভঙ্গ করার জন্য নির্ধারিত ধারায় মামলা দায়ের করে পুলিশ। এই ঘটনায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়ায়।

পতিরাম পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ওসি সঞ্জয় মুখার্জী বলেন, স্বাস্থ্যবিধি অগ্রাহ্য করা ও মাস্ক, হেলমেট ইত্যাদি না পরার জন্য ১১ জন যানবাহন চালককে আটক করে পুলিশ কেন্দ্রে এনে বসিয়ে রাখা হয়। পরে তাদের অঙ্গীকার পত্রে ( মুচলেকা) স্বাক্ষর করিয়ে সতর্ক করার পর ছেড়ে দেওয়া হয়। এই ব্যক্তিরা পুনরায় এই রকম কাজ করলে আইনমাফিক তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ওসি পরিস্কার জানিয়ে দেন। সঞ্জয়বাবু আরও জানান, পার পতিরামের এক ব্যবসায়ীকে নির্ধারিত সময় পেরিয়ে যাওয়ার পরও মাস্ক না পরে ব্যবসা করায় পুলিশের তরফে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।