দিনহাটা শহরের যৌনপল্লিতে যৌথ অভিযান, উদ্ধার ৭ নাবালিকা সহ ১৪

361

দিনহাটা ও সিতাই: দিনহাটা শহরের যৌনপল্লিতে যৌথ অভিযানে উদ্ধার হল ৭ নাবালিকা ও ৭ যুবতী। শুক্রবার ওয়েস্ট বেঙ্গল কমিশন ফর প্রোটেকশন অফ চাইল্ড রাইটসের বিশেষ দল ও দিনহাটা থানার পুলিশ ৯ নম্বর ওয়ার্ডে থাকা যৌনপল্লিতে যৌথ অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করেছে। ওই যৌনপল্লিতে অন্য রাজ্য থেকে নাবালিকাদের এনে দেহ ব্যবসায় নামানো হচ্ছিল বলে অভিযোগ। তার ভিত্তিতেই এদিন অভিযান চালানো হয়েছে। দুদিন আগেও দিনহাটা থানার তরফে এরকমই অভিযান চালানো হয়েছিল। সেদিন পুলিশকে স্থানীয় বাসিন্দাদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়। সেকথা মাথায় রেখে এদিন বিশাল পুলিশ বাহিনী এলাকা ঘিরে ফেলে। যৌথ অভিযানে যৌনপল্লি থেকে ৭ নাবালিকা সহ ১৪ জনকে উদ্ধার করে চাইল্ড রাইটসের বিশেষ দল ও পুলিশ। তবে কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দার অভিযোগ, পুলিশ কোনও কথা না শুনে তাঁদের মেয়েকে তুলে নিয়ে গিয়েছে।

মহকুমা শাসক হিমাদ্রি সরকার জানান, এর আগেও ওই এলাকা থেকে একাধিক নাবালিকা উদ্ধার হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়, সেখানে আরও কয়েকজন নাবালিকা রয়েছে। তার ভিত্তিতেই এদিন অভিযান চালানো হয়েছে।

- Advertisement -

দিনহাটা শহরের যৌনপল্লিতে যৌথ অভিযান, উদ্ধার ৭ নাবালিকা সহ ১৪| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

এসডিপিও ত্রিদিব সরকার জানান, এদিন পুলিশ ও চাইল্ড রাইটসের একটি বিশেষ দল দিনহাটার যৌনপল্লিতে অভিযান চালায়। অভিযানে উপস্থিত ছিলেন চাইল্ড রাইটস কমিশনের এরাজ্যের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী। অভিযানে ১৪ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তার মধ্যে ৭ জন নাবালিকা। তাদের কোচবিহার কোতায়ালি থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আলোচনা করে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।

অন্যদিকে, এদিন রাজ্য চাইল্ড রাইটস কমিশনের চার সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল দিনহাটার পেটলা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় সচেতনতামূলক কর্মসূচিতে অংশ নেয়। প্রতিনিধি দলে ছিলেন চাইল্ড রাইটস কমিশনের এরাজ্যের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী, কমিশনের স্পেশাল কনসালটেন্ট সুদেষ্ণা রায়, মুর্শিদাবাদ সিডব্লিউসির চেয়ারপার্সন সোমা ভৌমিক ও ইন্টারন্যাশনাল জাস্টিস বেঞ্চের আধিকারিক ডলফি বিশ্বাস। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন দিনহাটার এসডিপিও ত্রিদিব সরকার, দিনহাটা থানার আইসি জয়দীপ মোদক।

চাইল্ড রাইটস কমিশনের এরাজ্যের চেয়ারপার্সন অনন্যা চক্রবর্তী বলেন, ‘নির্দিষ্ট অভিযোগ পেয়ে আমরা দিনহাটায় আসি। যৌনপল্লি থেকে ১৪ জন মেয়েকে উদ্ধার করা হয়েছে। এরপর পেটলায় সচেতনতামূলক কর্মসূচিতে অংশ নিই।’

তিনি আরও জানান, পেটলা সহ ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী গ্রামীণ এলাকাগুলিতে মেয়েদের সুরক্ষার বিষয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষকে অনেক বেশি সতর্ক থাকতে হবে।