শহিদ শ্রদ্ধাঞ্জলি দিবসে বিজেপিতে ভাঙন

123

বর্ধমান: 

তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ দিবসের পালটা বুধবার ’শহীদ শ্রদ্ধাঞ্জলি’ দিবস পালন করল গেরুয়া শিবির। সেদিনই খেলা হবে শ্লোগান তুলে জামালপুর ব্লকে বিজেপির ঘরে বড়সড় ভাঙন ধরাল তৃণমূল কংগ্রেস। একযোগে প্রায় ১৪০০ বিজেপি কর্মী-সমর্থক আনুষ্ঠানিকভাবে নাম লেখালেন ঘাসফুল শিবিরে। ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপির দাবি, সন্ত্রাসের হাত থেকে বাঁচতে অনেকেই এখন তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন মাত্র। মন থেকে কেউ বিজেপি ছাড়ছেন না।

- Advertisement -

শহিদ দিবসকে সামনে জামালপুর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস কার্যালয় চত্বরে বিশেষ অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়। সেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন ব্লকের প্রায় ১৪০০ বিজেপি কর্মী-সমর্থক। ভার্চুয়াল মাধ্যমে তৃণমূল সুপ্রিমোর বক্তব্য শোনেন শুরু থেকে শেষ অবধি। এরপর তাঁদের হাতে দলীয় পতকা তুলে দেন জামালপুর বিধানসভার বিধায়ক অলোক মাঝি, ব্লক তৃণমূল সভাপতি মেহেমুদ খাঁন এবং যুব সভাপতি ভূতনাথ মালিক।

মেহেমুদ খাঁন বলেন, ‘বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে রাজ্যের অন্যান জায়গার পাশাপশি জামালপুরের অনেক মানুষজন বিজেপি নেতাদের কথায় তাঁদের দলে যোগ দিয়েছিলেন। ভোটে বিজেপির হার হতেই দলীয় নেতারা গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে ব্যস্ত। দলীয় কর্মী-সমর্থকদের দিকে ফিরেও তাকাচ্ছেন না। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদানের আবেদন করেছিলেন। সেই আবেদনের ভিত্তিতে এদিন অনেকের হাতেই দলীয় পতকা তুলে দেওয়া হল।

জামালপুর বিধানসভার বিজেপি আহ্বায়ক জীতেন ডকাল বলেন, ‘মনে প্রাণে কেউ বিজেপি ছাড়েননি, ছাড়বেনও না। তৃণমূলের সন্ত্রাসের হাত থেকে বাঁচতে সর্বত্র বিজেপির লোকজন এখন তৃণমূলে ভিড়তে বাধ্য হচ্ছেন। জামালপুরের ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি।’