চেন্নাই, ২৫ অক্টোবরঃ তামিলনাড়ুর স্পিকার ১৮জন বিধায়ককে বহিষ্কার করেছিল। আর আজ তাঁর সেই সিদ্ধান্তই বহাল রাখল মাদ্রাজ হাইকোর্ট। বিচারপতি সত্যনারায়ণ আজকে এই রায় দিলেন।

হাইকোর্টের এই নির্দেশে খানিকটা হোঁচট খেলেন দীনাকরণ। স্বস্তি পেল পালানিস্বামী সরকার। কারণ তাঁরা আর বিধানসভার সদস্য থাকলেন না। ওই ১৮ বিধায়ক ভিকে শশীকলা ও তাঁর ভাইপো টিটিভি দীনাকরণের সমর্থক ছিলেন।

দীনাকরণের লক্ষ্য ছিল, মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামী ও উপ মুখ্যমন্ত্রী পনীরসিলভমকে সরিয়ে সরকার ও দলের গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করা।

গতবছর বিদ্রোহী বিধায়করা মুখ্যমন্ত্রী পালানিস্বামীকে সরানোর দাবি জানিয়ে রাজ্যপালকে চিঠি লেখেন। এরপরই অ্যান্টি ডিফেকশন ল অনুযায়ী তাঁদের বিধানসভা থেকে বরখাস্ত করেন স্পিকার। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে মাদ্রাজ হাইকোর্টে যান বহিষ্কৃত বিধায়করা।
তামিলনাড়ু বিধানসভায় ২৩৪টি আসন রয়েছে। এরমধ্যে ১৮ বিধায়ক বহিষ্কৃত ছিলেন। ২ বিধায়কের মৃত্যু হয়েছে। মোট ২০ বিধায়ক হিসেবের বাইরে ছিলেন। অর্থাৎ, মোট বিধায়ক সংখ্যা ২১৪। সরকারিপক্ষের হাতে রয়েছে ১১৬ সদস্য। সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য প্রয়োজন ১০৭ সদস্য। পালানিস্বামীর হাতে অতিরিক্ত ৯ বিধায়ক রয়েছেন। ১৮ জন বিধায়ক ফিরে এলে তাঁরা বিরোধীপক্ষের সঙ্গেই যেতেন। সেক্ষেত্রে দু’পক্ষের হাতেই থাকত ১১৬ আসন।