লোন পাইয়ে দেওয়ার নামে আর্থিক প্রতারণা, গ্রেপ্তার দুই মহিলা

564

বর্ধমান: লোন পাইয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে দরিদ্র পরিবারের একাধীক মহিলার কাছ থেকে টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করার অভিযোগে গ্রেপ্তার দুই মহিলা। পূর্ব বর্ধমানের কালনার ঘটনা। ধৃতরা হলেন সোমা দাস ও আরতি মাঝি। কালনা থানা এলাকাতেই বাড়ি দুই ধৃতের। কালনা পৌরসভার প্রশাসক দেবপ্রসাদ বাগের দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে কালনা থানার পুলিশ দুই প্রতারক মহিলাকে গ্রেপ্তার করে। শুক্রবার দুই ধৃতকে পেশ করা হয় কালনা মহকুমা আদালতে। বিচারক দুই ধৃতকে পাঁচ দিন পুলিশ হেপাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাগিয়েছে, দুই প্রতারক মহিলা সোমা দাস ও আরতি মাঝি যাদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তারা অত্যন্ত দিন দরিদ্র পরিবারের। ২০ জন প্রতারিতর বেশিরভাগ জনই অন্যের বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন। কালনা পৌরসভার প্রশাসক দেবপ্রসাদ বাগ বলেন, সোমা ও আরতি ওই দরিদ্র পরিবারের মহিলাদের কালনা পৌরসভা থেকে আড়াই লক্ষ টাকা লোন পাইয়ে দেওয়ার কথা বলেন। তার জন্য ওই দুই মহিলা ঋণ নিতে ইচ্ছুক মহিলাদের প্রত্যেকে কাছ থেকে ১১ হাজার ৬০০ টাকা করে হাতিয়ে নেন। দরিদ্র মহিলাদের তারা বলেন, ঋণের দেড় লক্ষ টাকা কালনা পৌরসভা ঋণ গ্রহীতার অ্যাকাউন্টে দিয়ে দেবে। আর বাকি ১ লক্ষ টাকা ১১০০ টাকা মাসিক কিস্তিতে শোধ করতে হবে। এই কথা বিশ্বাস করে দিনদরিদ্র মহিলারা ১১ হাজার ৬০০ টাকা দিয়ে দিলেও কেউ ঋণ আর পাননি। প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরে আবেদনকারী মহিলারা এরপর বৃহস্পতিবার কালনা পৌরসভার দ্বারস্থ হন। প্রশাসক দেবপ্রসাদ বাগ প্রাতারিতদের মেখথেকে সবিস্তার শোনার পর সোমা দাস ও আরতি মাঝির নামে কালনা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। দায়ের হওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে কালনা থানার পুলিশ ওই দুই মহিলাকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করেছেন প্রতারিতরা।

- Advertisement -