Big Breaking: কুলগাম এনকাউন্টারে খতম ২ জঙ্গি

প্রতীকী

অনলাইন ডেস্ক: জম্মু ও কাশ্মীরের কুলগাম জেলায় শনিবার নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ে দুই অজ্ঞাতপরিচয় জঙ্গি নিহত হল। কুলগাম জেলার নিপোরা এলাকায় এনকাউন্টারটি হয়।

শুক্রবার গভীর রাতে সেনা, সিআরপিএফ ও স্থানীয় পুলিশ একসঙ্গে ওই এলাকায় অভিযান শুরু করেছিল। বিষয়টি টের পেয়ে জঙ্গিরা বাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। বাহিনীও তার পাল্টা জবাব দেয়। এই বন্দুকযুদ্ধে দু’জন জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

এদিন অনন্তনাগ জেলার লাল্লন এলাকাতেও বাহিনীর গুলিতে ২ জঙ্গি নিহত হয়েছে। গোপন সূত্রে খবরের ভিত্তিতে তল্লাশি ওই এলাকায় অভিযান চালায় বাহিনী। জঙ্গি ও বাহিনীর ব্যাপক গুলির লড়াই শুরু হয়। এতে ২ জঙ্গি খতম হয়েছে।

জম্মু ও কাশ্মীরের ডিজি দিলবর সিং বলেন, এবছর এখনও পর্যন্ত ৩৬টি এনকাউন্টারে মোট ৮৮ জঙ্গিকে নিকেশ করা হয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় জঙ্গিও রয়েছে।

ইসলামিক স্টেট জম্মু ও কাশ্মীরের কমান্ডার আদিল আহমেদ ওয়ানি ও লস্কর-ই-তৈবার সদস্য শাহিন আহমেদ ঠোকরকে ২৫ মে কুলগামের খুদ হাজিপোরার খতম করেছিল বাহিনী।

কুলগামের ওয়ানপোরায় ৩০ মে একটি এনকাউন্টারে হিজবুল মুজাহিদিনের কমান্ডার পারভেজ আহমেদ পন্ডিত ও জইস-ই-মহম্মদের কমান্ডার শাকির আহমেদকে নিকেশ করেছিল বাহিনী।

অবন্তীপোরার সাইমো তালে ২ জুন বাহিনী গুলিতে নিহত হয়েছিল জইস-ই-মহম্মদের গ্রুপ কমান্ডার আকিব রামজান ওয়ানি ও অবন্তীপোরার জইস-ই-মহম্মদের কমান্ডার মহম্মদ মকবুল চোপান।

৩ জুন পুলওয়ামার কঙ্গনে বাহিনীর গুলিতে খতম হয়েছিল জইস-ই-মহম্মদের আইডি বিশেষজ্ঞ আবদুল রেহমান আলিয়াস ফৌজিভাই (পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডির বাসিন্দা), হিজবুল মুজাহিদিনের মনজুর আহমেদ কর, জইস-ই-মহম্মদের জাভেদ আহমেদ যারগার।

শোপিয়ানের রেবানে ৭ জুন বাহিনী একসঙ্গে ৫ জঙ্গি খতম করে। তারা হল- হিজবুল মুজাহিদিনের ইসফাক আহমেদ ইট্টু, জইস-ই-মহম্মদের আহমেদ মালিক ও হিজবুল মুজাহিদিনের তিন কমান্ডার আদিল আহমেদ মির, বিলাল আহমেদ ভাট ও সাজাদ আহমেদ ওয়াগাই।

৭ জুন রেবানেই আরেকটি এনকাউন্টারে বাহিনী হিজবুল মুজাহিদিনের উমর মোহিদিন ধোবি, লস্কর-ই-তৈবার রায়েস আহমেদ খান, হিজবুল মুজাহিদিনের সাকলিন আহমেদ ওয়াগাই ও ওয়াকিল আহমেদ নাইকুকে নিকেশ করে।

ফৌজিভাই ছাড়া বাকি নিহত সব জঙ্গিই জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দা। তাদের বেশীরভাগ কুলগাম, শোপিয়ান ও পুলওয়ামার জেলার। এই ১৮ জন ছাড়াও ২৮-মের দুটি এনকাউন্টারে ৪ জঙ্গিকে খতম করে বাহিনী। এলওসির নৌশেরা সেক্টরে ৩ জন ও কালাকোটে ১ জন নিহত হয়।