রায়গঞ্জ মহকুমায় ২ করোনা আক্রান্তের মৃত্যু

ফাইল ছবি।

রায়গঞ্জ: শুক্রবার রায়গঞ্জ মহকুমায় ২ করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হল।

তাঁরা করোনা সংক্রমিত হয়ে রায়গঞ্জ থানার কর্ণজোড়া ফাঁড়ির অন্তর্গত ছটপাড়ুয়া এলাকার মিক্কিমেঘা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। কোভিড হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদের একজন বীরেন মণ্ডল (৫৯) কালিয়াগঞ্জ থানার বাঘোন এলাকার কেউতান গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। অপরজন রঞ্জিত মজুমদার (৫০) বাড়ি রায়গঞ্জ শহরের মেডিক্যাল কলেজ সংলগ্ন ইন্দিরা কলোনি এলাকায়।

- Advertisement -

দুজনেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজে ডায়ালিসিস করাতে যান তাঁরা।  এরপরেই করোনা উপসর্গ মেলায় মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ তাঁদের লালার নমুনা পরীক্ষা করে। সেই রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তড়িঘড়ি স্বাস্থ্য দপ্তরের কর্মীরা ওই দুজনকে উদ্ধার করে কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল থেকে তাঁদের অবস্থার ক্রমশ অবনতি হতে থাকে। এদিন সকালে তাঁদের মৃত্যু হয়।

কোভিড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য, এদিন করোনা আক্রান্ত দুজনের মৃত্যু হয়েছে। সমস্ত ঘটনা জানানো হয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর, রায়গঞ্জ পুরসভা, রায়গঞ্জ থানার আইসি ও বিডিওকে। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক রবীন্দ্রনাথ প্রধান বলেন, দুজনের মৃত্যুর খবর পেয়েছি। সমস্ত বিষয় জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। তাঁরা করোনা আক্রান্ত হলেও তাঁদের করোনা জন্য মৃত্যু হয়নি। কিডনি সংক্রান্ত সমস্যা থাকায় মৃত্যু হয়েছে তাঁদের।

এই নিয়ে রায়গঞ্জ মিক্কিমেঘা কোভিড হাসপাতালে মৃত্যু হল ৫ জনের। মৃতদের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, দিনকয়েক আগে ডায়ালিসিস করার জন্য তাঁদের রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ডায়ালিসিস বিভাগে আনা হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসা চলছিল তাঁদের। তার মাঝেই দুই ব্যক্তির করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর আসে। এরপর তাঁদের রায়গঞ্জের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মৃতদের পরিবারের দাবি, রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের ডায়ালিসিস করতে গিয়েই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তাঁরা। তবে দুই ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ নিয়ে এখনো ধন্দ থাকলেও ঘটনার পর থেকে কালিয়াগঞ্জ রায়গঞ্জ এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। করোনা পজিটিভ হওয়ার মাত্র কয়েকদিনের মধ্যেই তাদের মৃত্যু হওয়ায় আতঙ্ক চরমে উঠেছে এলাকায়।

রায়গঞ্জ পুরসভার সংশ্লিষ্ট এলাকার তৃণমূলের কাউন্সিলর অর্ণব মন্ডল বলেন, আমাদের এলাকায় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি রায়গঞ্জের মিক্কিমেঘা কোভিড হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। এদিন তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। মৃতদের পরিবারের বক্তব্য, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই তাঁদের হোম কোয়ারান্টিনে রাখা হয়েছে। পুরসভা ও পঞ্চায়েত যাবতীয় সাহায্য করছে।