বালুরঘাট, ২০ জুন :  বাড়ির অমতে বিয়ে করায় বাবার বাড়ির সঙ্গে সম্পর্ক নেই। এবার কন্যাসন্তান হওয়ায় ছেড়ে চলে গিয়েছেন স্বামী। আশ্রয়হারা অবস্থায় একমাসের সন্তানকে নিয়ে প্রশাসনের দরজায় দরজায় ঘুরছেন মলি দাস নামে ওই যুবতী। রাত কাটানোর জায়গা না পেয়ে বালুরঘাট হাসপাতালের বিশ্রামাগারেই থাকতে শুরু করেছেন মলি। কুমারগঞ্জ থানা ও পতিরাম ফাঁড়িতে বিষয়টি জানিয়েও কোনো লাভ হয়নি বলে অভিযোগ তাঁর। বিচার না পেলে আত্মহত্যার হুমকি দিয়েছেন মলি।

বছর কুড়ির ওই যুবতী জানিয়েছেন, বছর দুয়েক আগে নিতাই দাস নামে এক যুবকের সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর। যুবতীর বাড়ির সদস্যরা এই বিয়ে মেনে নেননি। স্বামীর সঙ্গে মুম্বই চলে যান মলি। এক মাস আগে এক কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিন্তু কন্যাসন্তান হওয়ার পর থেকেই নিতাইয়ের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হয় মলির। অভিযোগ, বুধবার পতিরাম এলাকায় বাস থেকে সন্তান সহ মলিকে নামিয়ে দেন নিতাই। এরপর তিনি বেপাত্তা হয়ে যান। মোবাইলে ফোন করা হলেও সেটি সুইচড অফ ছিল। বাবার বাড়িতে ফেরার চেষ্টা করলেও ফিরতে পারেননি। থানায় গিয়েও লাভ না হওয়ায় হাসপাতালের বিশ্রামগারেই ঠাঁই নিয়েছেন মলি।