নয়াদিল্লি, ১৫ ডিসেম্বরঃ পাকিস্তানের হাই কমিশনের দপ্তর থেকে খোয়া গেল ২৩টি ভারতীয় পাসপোর্ট। কারাতপুর সাহিব সহ অন্যান্য গুরুদ্বার দর্শনে যে সব শিখ তীর্থযাত্রী ভারত থেকে পাকিস্তানে গিয়েছিলেন, খোয়া যাওয়া পাসপোর্টগুলি তাঁদেরই বলে জানা গিয়েছে। যাঁদের পাসপোর্ট হারিয়েছে তাঁরা পুলিশে এফআইআর দায়ের করেন। এরপরেই পুরো বিষয়টি বিদেশ মন্ত্রকের সামনে আসে। খোয়া যাওয়া পাসপোর্ট যাতে দ্রুত খুঁজে পাওয়া যায় সেজন্যে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছে বিদেশ মন্ত্রক। পাক হাই কমিশনের সঙ্গেও এনিয়ে আলোচনা চলছে।

গুরু নানকের ৫৪৯ তম জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ২১ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে পাকিস্তান যাওয়ার জন্যে ৩৮০০ ভারতীয় শিখ তীর্থযাত্রীকে ভিসা দিয়েছিল পাক সরকার। তারই মধ্যে ২৩ জনের পাসপোর্ট খোয়া গেলেও, তার দায় স্বীকার করেনি পাকিস্তান। তদন্তে জানা গিয়েছে, এই ২৩ জনের পাসপোর্ট দিল্লির এক এজেন্টের কাছে ছিল। তাঁর দাবি, প্রত্যেকের পাসপোর্ট তিনি পাকিস্তান হাইকমিশনের কাছে জমা দিয়েছে। কিন্তু পরে যখন পাকিস্তান হাইকমিশনে গিয়ে তিনি পাসপোর্টগুলি ফেরত চান, তখন তাঁকে জানানো হয়, দপ্তরে কোনও ভারতীয়র পাসপোর্টই নেই।

এক ভারতীয় আধিকারিক বলেন, ‘হারিয়ে যাওয়া পাসপোর্টগুলি যাতে কোনও খারাপ কাজে ব্যবহার করা না হয়, আমরা সেদিকে বিশেষ নজর রাখছি।’