পশ্চিম বর্ধমান জেলার ২৬৩৩ পুরোহিত ভাতা পাবেন

247

আসানসোল: পশ্চিম বর্ধমান জেলার ২৬৩৩ জন পুরোহিত সরকারি ভাতা পাচ্ছেন। শুক্রবার দুপুরে আসানসোলের উষাগ্রামের অগ্নিকন্যা ভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে আসানসোল পুরনিগমের প্রশাসক, পান্ডবেশ্বরের বিধায়ক জিতেন্দ্র তেওয়ারি একথা জানান। এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের দুই মুখপাত্র তথা আসানসোল দুর্গাপুর উন্নয়ন পর্ষদ বা আড্ডার চেয়ারম্যান বিধায়ক তাপস বন্দোপাধ্যায় ও পুরনিগমের প্রশাসক বোর্ডের অন্যতম সদস্য অশোক রুদ্র ও জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের কো-অর্ডিনেটর হরেরাম সিং।

এদিন জিতেন্দ্র তেওয়ারি বলেন, দুটি পর্যায়ে জেলার আসানসোল ও দুর্গাপুর মিলিয়ে ২৬৩৩ জন পুরোহিত সরকারি ভাতা পাচ্ছেন। যারমধ্যে ট্রাইব্যাল বা আদিবাসী সম্প্রদায়ের ৫০৩ জন পুরোহিত রয়েছেন। জেলার মধ্যে আসানসোল পুরনিগম ও দুর্গাপুর পুরনিগম এলাকায় দুই পর্যায়ে যথাক্রমে ৭৩২ জন ও ১৩৯ জন পুরোহিত ভাতা পাচ্ছেন। তিনি আরও বলেন, পুরোহিতরা বাড়িও পাবেন। তার প্রক্রিয়া চলছে রাজ্য সরকার তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যা বাংলার সব ধর্ম, সব সম্প্রদায় ও সমাজের সব স্তরের মানুষের কথা ভাবেন। তাতেই বিজেপির মতো সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দলগুলোর সমস্যা হচ্ছে।

- Advertisement -

অশোক রুদ্র বলেন, আমরা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করিনা। তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে সকলেই সমান। একটা বিশেষ সম্প্রদায়ের মানুষদের যখন কিছু সুবিধা দেওয়া হয়, তখন বিজেপি বলে তৃণমূল কংগ্রেস ও রাজ্য সরকার তোষণের রাজনীতি করছে। আর যখন পুজোর সময় ক্লাবগুলোকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হল, তখন বিজেপি বলছে মানুষের করের টাকায় দান খয়রাতি করা হচ্ছে। এটা বিজেপির দ্বিচারিতা। বিজেপির কথাতেই তো পুজোর অনুদান বন্ধ করার জন্য হাইকোর্টে মামলা হয়েছিল। আমরা কাউকে কিছু বলছি না। বাংলার মানুষেরা সব দেখছেন। ঠিক সময়ে তারা জবাব দেবেন।