ভোটের মুখে বাজেয়াপ্ত প্রচুর শব্দবাজি, ধৃত ৩

57

বর্ধমান: বিধানসভা ভোটের প্রাক্কালে শব্দবাজি উদ্ধারে অভিযান জোরদার করল পূর্ব বর্ধমান জেলা পুলিশ। জেলার খণ্ডঘোষ ও মেমারি থানার পুলিশের অভিযানে উদ্ধার হল প্রচুর শব্দবাজি ও বাজি তৈরির মশলা। এই ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। অভিযান জারি থাকবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার রাতে খণ্ডঘোষ থানার কেন্দুর গ্রামে দু’টি বাজি কারখানায় অভিযান চালানো হয়। পুলিশি অভিযানে সেখান থেকে উদ্ধার হয়েছে প্রচুর পরিমাণ শব্দবাজি ও বাজি তৈরির মশলা। ওই সমস্ত কিছু বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি পুলিশ বাজি কারবারে জড়িত টোটন পাল ও রত্নেশ্বর পাল নামে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ দাবি, খণ্ডঘোষের দু’টি বাজি কারখানা থেকে ৭৫টি চকোলেট বোমা, ৪৬৫টি রংমশাল, ৪২টি তুবড়ি, ১৫টি রকেট, বেশ কিছু প্যাকেট ফুলঝুরি ও ১ কেজি ৩০০ গ্রাম গান পাউডার উদ্ধার হয়েছে। টোটন পাল ও রত্নেশ্বর পাল বাজি তৈরির কোনও বৈধ নথি দেখাতে না পারায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ ধৃত দুজনকে শনিবার বর্ধমান আদালতে পেশ করে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, এদিন দুপুরে এসডিপিও (বর্ধমান দক্ষিণ) আমিনুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে মেমারি থানার পুলিশ গ্রাম দেবীপুর ও ডাঙ্গাপাড়ায় বাজির কারবারি ডেরায় হানা দেয়। পুলিশের দাবি, দুটি জায়গা থেকে মোট ১১ কুইন্টাল ১৮ কেজি বাজি ও প্রচুর পরিমাণ বাজি তৈরির মশলা উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, গ্রাম দেবীপুরের একটি হার্ডওয়ার দোকান ও ডাঙ্গাপাড়ার একটি পরিত্যক্ত ঘর থেকে ওইসব বাজি ও বাজি তৈরির মশলা উদ্ধার হয়েছে। বাজি মজুত সংক্রান্ত বৈধ কোনও নথি দেখাতে না পারায় পুলিশ হার্ডওয়্যার দোকানের মালিক প্রবীর পাঁজাকে গ্রেপ্তার করেছে।