ডাম্পার ও গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত ৩, আহত শিশু সহ ৭

117

বীরপাড়া: ডলোমাইট বোঝাই ডাম্পারের সঙ্গে যাত্রীবাহী ছোট গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু হল ৩ চা শ্রমিকের। বৃহস্পতিবার বিকেলে দুর্ঘটনাটি ঘটে আলিপুরদুয়ার জেলার বীরপাড়া লঙ্কাপাড়া রোডের দলমোর চা বাগান এলাকায়। মৃতরা হলেন, আশা ওরাওঁ (৪৫), গুলশান সুরি (৪৮) ও শালু মুন্ডা(৪৪)। এরা সকলেই গ্যারগান্ডা চা বাগানের শ্রমিক। ছোট গাড়িটির চালক সহ ৭ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে এক আট মাস বয়সি শিশুকন্যাও রয়েছে। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এদিন উত্তেজিত জনতা ঘাতক ডাম্পারটিতে আগুন লাগিয়ে দেয়। খবর পেয়ে বীরপাড়া থানার পুলিশ ও ফালাকাটা দমকলকেন্দ্রের একটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিন বিকেলে বীরপাড়া থেকে একটি যাত্রীবাহী গাড়ি গ্যারগান্ডা চা বাগানের উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল। পাগলি ভুটান থেকে ডলোমাইট বোঝাই একটি ডাম্পার বিপরীত দিক থেকে আসছিল। স্থানীয়রা জানান, যাত্রীবাহী গাড়িটির সঙ্গে ডাম্পারটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। তাঁদের অভিযোগ, বেপরোয়াভাবে যাচ্ছিল ওই ডাম্পারটি। তাঁদের আরও অভিযোগ, ডাম্পারগুলি বরাবরই বীরপাড়া লঙ্কাপাড়া রোডে বেপরোয়াভাবে চলাচল করে। এর আগেও ডাম্পারের ধাক্কায় অনেকের মৃত্যু হয়েছে। রাস্তাটি পুনর্নির্মাণের পর চওড়া হওয়ায় যানবাহনের গতি আরও বেড়েছে। এদিন দুর্ঘটনায় দুমড়ে-মুচড়ে যায় যাত্রীবাহী গাড়িটি। আহতদের ৬ জনকে বীরপাড়া রাজ্য সাধারণ হাসপাতাল থেকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। দুর্ঘটনায় আহত আট মাসের ওই শিশুকন্যাকে বীরপাড়া হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা ডাম্পারটিতে আগুন লাগিয়ে দেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ ও দমকল। দুর্ঘটনার পরই ডাম্পার চালক পালিয়ে যায়। তার খোঁজ চলছে।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, বীরপাড়া লঙ্কাপাড়া রোডটি কিছুদিন আগে ১৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে পুনর্নির্মাণ করা হয়েছে। ওই রাস্তা দিয়েই পাগলি ভুটান থেকে ডলোমাইট বোঝাই করে বীরপাড়া পর্যন্ত চলাচল করে শয়ে শ’য়ে ট্রাক ও ডাম্পার। এগুলি প্রায়ই দুর্ঘটনার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। পুলিশ জানায়, বেপরোয়াভাবে যান চলাচল বন্ধ করতে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।