কলকাতার হোটেলে আত্মঘাতী শিলিগুড়ির একই পরিবারের ৩

229

কলকাতা: কলকাতার হোটেলে আত্মঘাতী হলেন শিলিগুড়ির একই পরিবারের তিন সদস্য। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁরা শিলিগুড়ি পুরনিগমের ৪০ নম্বর ওয়ার্ডের অধীন সেবক রোডের একটি আবাসনে থাকতেন। মৃতদের নাম মহাবীর প্রসাদ (৬৬), ছন্দাদেবী বনসাল (৬০) ও সুনীত বনসাল (৪৫)। হোটেল থেকে তাঁদের দেহ উদ্ধারের পাশাপাশি একটি সুইসাইড নোটও পেয়েছে পুলিশ। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, ব্যবসাজনিত কারণে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন ওই তিনজন। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরই মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

কলকাতার হোটেলে আত্মঘাতী শিলিগুড়ির একই পরিবারের ৩| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

- Advertisement -

পুলিশ সূত্রের খবর, ১৪ মার্চ, রবিবার দুপুর দেড়টা নাগাদ শিলিগুড়ির বাসিন্দা ওই তিনজন কলকাতার ১৭ রফি আহমেদ কিদোয়াই রোডের একটি হোটেলে উঠেছিলেন। সেদিন রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ তাঁরা খাবার খান। এরপর তাঁরা ভিতর থেকে ঘরের দরজা আটকে দেন। সোমবার হোটেলের কর্মীরা বেশ কয়েকবার দরজায় ধাক্কা দেন। কিন্তু সাড়া মেলেনি। এরপর তাঁরা নিউ মার্কেট পুলিশ স্টেশনে খবর দেন। পুলিশের উপস্থিতিতে দরজা খোলা হয়। তিনজনকে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। হোটেলের ওই ঘর থেকে একটি বিষের বোতল ও সুইসাইড নোট উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই তিনজন কেন আত্মহত্যা করলেন, মৃত্যু পেছনে আসল কারণ কী, সেসব জানতে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, রবিবার রাতেই বনসাল পরিবারের তিন সদস্য বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। দেহে পচন ধরে গিয়েছিল। পুলিশ জানিয়েছে, শিলিগুড়িতে চট ও ব্যাগের ব্যবসা রয়েছে বনসাল পরিবারের। সম্প্রতি ব্যবসায় ক্ষতি হওয়ায় বেশ কিছু টাকা ঋণ নিয়েছিলেন তাঁরা। আর সম্ভবত ঋণের জালে জর্জরিত হয়েই তাঁরা আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন বলে অনুমান পুলিশের। অন্যদিকে, বনসাল পরিবারের তিন সদস্যের মৃত্যুর খবর শিলিগুড়িতে পৌঁছোতেই শোকের ছায়া নেমে এসেছে।