বন্যাত্রাণ কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত তৃণমূলের ৩ নেত্রী

101

হরিশ্চন্দ্রপুর: বন্যাত্রাণ কেলেঙ্কারিতে এবার নাম জড়াল হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ তিনজনের। প্রশাসনের তরফে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি কোয়েল দাস, শিশু ও নারী ত্রাণ কর্মাধ্যক্ষ রৌশনারা খাতুন এবং বিরোধী দলনেত্রী সুজাতা সাহার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। উপভোক্তাদের ভুয়ো তালিকা তৈরি করে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তাঁদের বিরুদ্ধে। তবে তাঁদের সঙ্গে আরও অনেকে জড়িত রয়েছেন বলে অভিযোগ। প্রসঙ্গত, বিরোধী দলনেত্রী পদে থাকা সুজাতা সাহা পরবর্তিতে শাসকদলে যোগদান করেন।

২০১৭ সালে ভয়াবহ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয় হরিশ্চন্দ্রপুর থানার বিস্তীর্ণ এলাকা। সেই সময় তালিকায় নাম থাকা সত্ত্বেও দুর্গতদের অনেকেই ত্রাণের টাকা পাননি বলে অভিযোগ ওঠে। এই নিয়ে তাঁরা প্রশাসনের দ্বারস্থ হন। তদন্তে ত্রাণের টাকা আত্মসাতের বিষয়টি সামনে আসে। এ নিয়ে আদালতে মামলাও করেন হরিশ্চন্দ্রপুরের প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক মোস্তাক আলম। যদিও এ বিষয়ে তৃণমূলের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ তিনজনের কারও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। প্রসঙ্গত, এর আগেও একই অভিযোগে বেশ কয়েকজন গ্রেপ্তার হয়েছে।

- Advertisement -

চাঁচলের এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল জানান, অভিযোগ খতিয়ে দেখে আইন মাফিক পদক্ষেপ করা হবে। চাঁচলের মহকুমা শাসক কল্লোল রায় জানান, তদন্তের পর প্রশাসনের তরফে এফআইআর করা হয়েছে। বাকিটা পুলিশ দেখবে।

এদিকে, প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের প্রাপ্য টাকার দাবি জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান। বিজেপি নেতা রূপেশ আগরওয়ালের কথায়, ২০১৭ সালের বন্যাত্রাণ নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে এই এলাকায়। প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা কেউই টাকা পাননি। যদিও হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানিক দাস জানান, দল দুর্নীতি সমর্থন করে না। আইন আইনের পথেই চলবে।