মুর্শিদাবাদে করোনায় আক্রান্ত ৪

826
প্রতীকী ছবি

মিঠুন হালদার, মুর্শিদাবাদ: মালদার পরে মুর্শিদাবাদেও থাবা বসাল করোনা। মুর্শিদাবাদের সুতি এবং জঙ্গিপুরে একজন নার্স ও পরিযায়ী শ্রমিক সহ ৪জনের শরীরে করোনার হদিস মিলেছে।

স্বাস্থ্যদপ্তরের তরফে রবিবার রাতেই সংক্রামিত রোগীদের বহরমপুরে মাতৃসদনে তৈরি করা কোভিড হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সেই সঙ্গে গতকাল রাতে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের স্ত্রী ও পুরুষ মেডিসিন বিভাগে রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

- Advertisement -

মুর্শিদাবাদে করোনায় আক্রান্ত ৪| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

সুতি এবং রঘুনাথগঞ্জের বেশ কয়েকটি এলাকা সিল করেছে প্রশাসন। ঘটনার খবর এলাকায় ছড়িযে পড়া মাত্রই সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

মুর্শিদাবাদে করোনায় আক্রান্ত ৪| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

এই বিষযে মুর্শিদাবাদের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রশান্ত বিশ্বাস বলেন, ‘সুতিতে যে পরিযায়ী শ্রমিকরা ফিরেছেন তাঁরা দিল্লি থেকে গত সাত দিন আগে মুর্শিদাবাদে ফিরেছিলেন। তাদের মধ্যে দুজন সুতির দহারপারা এলাকার এবং একজন সুতির মহিশাইল এলাকার বাসিন্দা। জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের একজন নার্স সংক্রামিত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে করোনার উপসর্গ ধরা পড়তেই তাদের লালারস সংগ্রহ করে পরীক্ষা করতে পাঠানো হলে প্রত্যেকের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। প্রত্যেককে বহরমপুরের মাতৃসদনে তৈরি করা কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তাঁদের সংর্স্পশে কারা এসেছিলেন তা নিয়ে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরা খোঁজ নিচ্ছেন। ইতিমধ্যে জঙ্গিপুর মহকুমা হাসপাতালের প্রায় ১৫ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে হোম কোয়ারান্টিনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

কিন্তু সেই নার্সের সংর্স্পশে আসা চিকিৎসকদের কি হবে তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি স্বাস্থ্যদপ্তরের কর্তারা। যদিও বা সেই সমস্ত চিকিৎসকরা হাসপাতালে এই মুহুর্তে কাজে গিয়ে বহাল তবিয়তে বাইরে রোগী দেখছেন বলে জানা গিয়েছে। যে কারণে আরও বেশি আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন স্থানীয়রা। সেই বিষযে স্থানীয় প্রসাশনের যদিও বা কোনও হেলদোল নেই বলে ক্ষোভ বাড়তে শুরু করেছে এলাকার মানুষের মধ্যেও।

বেশ কয়েকদিন আগে মুর্শিদাবাদের সালারে এক ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। কিন্তু সেই ব্যক্তির মৃত্যুর কারণ রাজ্য সরকার কোনওভাবেই করোনায় মৃত্যু বলে না মানলেও পরে কেন্দ্র সরকারের চাপে করোনায় মৃত্যু বলে সঠিক কারণ ব্যাখ্যা করেছে রাজ্য সরকার। এরপর করোনা আক্রান্তের সংখ্যা রাজ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি মুর্শিদাবাদ হবে বলে আশঙ্কা স্বাস্থ্যদপ্তরের।