জমজমাট শ্লোগানের লড়াই, মনোনয়ন জমা দিলেন তৃণমূল-বিজেপির ৯ প্রার্থী

52

আসানসোল: কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্য়ে আসানসোল মহকুমার পাঁচটি বিধানসভার ৯ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিলেন আজ সোমবার। মনোনয়ন জমা দেন তৃণমূল কংগ্রেসের ৪ এবং বিজেপির ৫ প্রার্থী। এদিকে মনোনয়ন পর্ব চলাকালে আসানসোল মহকুমা শাসকের কার্যালয়ের অদূরে রবীন্দ্রভবন সংলগ্ন এলাকায় দুই দলের মিছিল মুখোমুখি হতেই জোর শ্লোগান উঠতে শুরু করে। তৃণমূলের তরফে ‘জয় বাংলা’ উলটোদিকে বিজেপির তরফে ‘জয় শ্রী রাম’ শ্লোগান দেওয়া হয়। শ্লোগান পাল্টা শ্লোগানে ভোটের উত্তাপ যেন ক্রমেই চড়তে শুরু করে আসানসোলে। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, সোমবার পর্যন্ত আসানসোল মহকুমার ৫ টি কেন্দ্র থেকে ১৭ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন।

এদিন সকাল ১১টা নাগাদ রবীন্দ্র ভবন চত্বরে জমায়েত হন আসানসোল দক্ষিণের প্রার্থী অগ্নিমিত্রা পাল, আসানসোল উত্তরের প্রার্থী কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, বারাবনির প্রার্থী অরিজিৎ রায়, জামুড়িয়ার প্রার্থী তাপস রায় এবং কুলটির প্রার্থী কেশব পোদ্দার। সেখান থেকে দলের কর্মী-সমর্থকদের উপস্থিতিতে সুবিশাল মিছিলের মাধ্যমে প্রার্থীরা মহকুমাশাসকের কার্যালয়ে পৌঁছোন। এদিন বিজেপির প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার সময় উপস্থিত ছিলেন মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র। বিজেপির পরেই মনোনয়ন জমা দেন তৃমমূলের চার প্রার্থী। বেলা সাড়ে বারোটা নাগাদ রবীন্দ্র ভবন চত্বরে জমায়েত হন আসানসোল দক্ষিণের প্রার্থী সায়নী ঘোষ, আসানসোল উত্তরের প্রার্থী মলয় ঘটক, জামুড়িয়ার প্রার্থী হরেরাম সিং এবং বারাবনির প্রার্থী বিধান উপাধ্যায়। কুলটি বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় অবশ্য় এদিন মনোনয়ন জমা দেননি। মঙ্গলবার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।

- Advertisement -

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি দাবি করেন, জেলার ৯টি কেন্দ্রেই তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থীরা জিতবেন। অন্যদিকে মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর মলয় ঘটক বলেন, ‘আমাদের খেলা হবে উন্নয়ন নিয়ে। যে খেলায় আর কেউ থাকবে না।’ অন্যদিকে, মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পরে বিজেপির তরফে অগ্নিমিত্রা পাল, কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, অরিজিৎ রায়েরা দাবি করেন, তারা জিতছেন। মানুষের উচ্ছ্বাস ও জন সমর্থন বলছে আমরা জিতছি। প্রচারের প্রথম দিন থেকেই সেটা আমরা বুঝতে পারছি।