অসম-বাংলা সীমানায় আটকে ৪০ পরিযায়ী শ্রমিক

364

তুফানগঞ্জ: অরুণাচল প্রদেশ থেকে সড়ক পথে বাড়ি ফেরার পথে অসম-বাংলা সীমানায় ৪০ পরিযায়ী শ্রমিককে আটকে দিল পুলিশ। বর্তমানে তাঁরা বক্সিরহাট এলাকায় আটকে আছেন। তাঁরা কোচবিহার সহ এরাজ্যের বিভিন্ন জেলার বাসিন্দা। তাঁদের অভিযোগ, বাড়ি ফিরতে চেয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে বারবার আবেদন জানানো সত্ত্বেও কোনওরকম সাহায্য মিলছে না।

সূত্রের খবর, ছোট গাড়ি করে গত বুধবার রাত ন’টা নাগাদ এরাজ্যে প্রবেশের চেষ্টা করেন ওই শ্রমিকরা। কিন্তু, বৃহস্পতিবার কোচবিহার জেলা প্রশাসনের তরফে তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। এছাড়াও, বেশ কয়েকজন শ্রমিক হেঁটে, সাইকেলে চেপে অসমে প্রবেশ করেন। সেখানে তাঁদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর কোচবিহার জেলায় প্রবেশ করতে গেলে পুলিশ নাকা চেকিংয়ের সময় আটকে দেওয়া হয়।

- Advertisement -

অন্যদিকে, এদিন রাতে বারোবিশায় এসে পৌঁছান ৯০ জন। প্রশাসনের থেকে সহযোগিতা না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে হেঁটে রওনা দেন তাঁরা। পরিযায়ী শ্রমিক কাজল বারুই, রাখাল অধিকারিদের অভিযোগ, ভিনরাজ্য প্রশাসন স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর সেরাজ্য ছাঁড়ার অনুমতি দিলেও এরাজ্যের প্রশাসন তাঁদের আটকে দিচ্ছে। বাড়ি ফিরতে দিচ্ছে না।

কোচবিহার ডিএসপি ট্রাফিক চন্দন দাস বলেন, ‘বাংলায় প্রবেশের মুখে যাঁরা কোনওরকম নথি দেখাতে পারেননি, তাঁদের আটকে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া, তাঁদের এরাজ্যের প্রবেশের জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে কোনও সরকারি নির্দেশিকা নেই। ঠিক তেমনি এরাজ্যের প্রবেশের জন্য তাঁদের কাছেও কোনও নথি নেই। নথিপত্র ঠিক থাকলে রাজ্য সরকার সকল শ্রমিকদের গ্রহণ করছে। সুতারাং, নথি দেখাতে পারলে এরাজ্যে প্রবেশ করতে পারবেন, অন্যথা নয় বলে তিনি স্পষ্ট জানান। একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘তাঁদের রাজ্যে প্রবেশের ব্যবস্থা করতে কোচবিহার ও পার্শ্ববর্তী অসম রাজ্যের জেলাশাসকের সঙ্গে আলোচনা চলছে। দ্রুত সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’