আজমের ফেরত বিষ্ণুপুরের ৫ জন করোনা পজিটিভ

634

কলকাতা: গত ৫ মে আজমের শরিফ থেকে যেসব পুণ্যার্থীদের ট্রেনে করে নিয়ে আসা হয়েছিল, তাঁদের মধ্যে অনেকের শরীরেই করোনার সংক্রমণ ধরা পড়েছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, পথসাথী প্রকল্পের মাধ্যমে সেদিন যেসব তীর্থযাত্রীকে ডানকুনিতে নিয়ে এসে বাসে করে তাঁদের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছিল তাঁদের মধ্যে ১০০ জনকে পাঠানো হয়েছিল দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ডহারবার পুলিশ জেলার অন্তর্গত বিষ্ণুপুর, নোদাখালি, ডায়মন্ডহারবার, মহেশতলা, বজবজ প্রভৃতি থানা এলাকায়।

- Advertisement -

দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গিয়েছে, বিষ্ণুপুর থানা এলাকায় যে ৫৪ জনকে ছাড়া হয়েছিল, তাঁদের মধ্যে ৩০ জনের লালারসের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। ওই ৩০ জনের মধ্যে ১১ জনের পরীক্ষার রিপোর্ট এদিন পাওয়া গিয়েছে। আর সেই রিপোর্টে ওই ১১ জনের মধ্যে পাঁচজনের নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ।

জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর আরও জানিয়েছে, বাকিদের পরীক্ষার রিপোর্ট শনিবার পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। যাদের রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে তাঁদেরকে এমআর বাঙ্গুর হাসপাতাল পাঠানো হয়েছে।সেই সঙ্গে তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছিলেন তাঁদের মধ্যে ২০ জনকে কোয়ারান্টিনে পাঠানো হয়েছে। এর আগেই আজমের শরিফ থেকে ফেরা মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুরের ৭ জনের শরীরেও করোনা ধরা পড়েছে। এবার বিষ্ণুপুর থানা এলাকার ৫ জন আজমের শরিফ ফেরত পুণ্যার্থীর শরীরে করোনা ভাইরাস মিলল।

অপরদিকে এদিন উত্তর কলকাতার আরজি কর মেডিকেল কলেজের তিন জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সেই কারণে হাসপাতালের ২০ জনকে কোয়ারান্টিনে পাঠানো হয়েছে। আক্রান্তদের কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে তিন দফায় আরজি কর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় দু’দফায় হাসপাতালটিকে বেশ কিছুদিন বন্ধ রাখতে হয়েছিল।

অপরদিকে, গত রবিবার হাওড়ার গোলাবাড়ি থানার অন্তর্গত সনাতন মিস্ত্রি লেনের ১০০ জনের র‍্যান্ডম বেসিসে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। ওই নমুনা সংগ্রহের অভিযানে যুক্ত ছিলেন হাওড়া পুরসভা ও স্বাস্থ্যবিভাগের কর্মীরা। সেই ১০০ জনের নমুনা পরীক্ষায় এদিন ১০ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর দরুন ওই এলাকায় ব্যাপক আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।