চিতাবাঘের আক্রমণে জখম ৫ গ্রামবাসী

546

ময়নাগুড়ি: শনিবার সকালে ময়নাগুড়ি ব্লকের সাপ্টিবাড়ি-১ এলাকার পাগলারবাড়িতে চিতাবাঘের আক্রমণে জখম হয়েছেন ৫ জন গ্রামবাসী। আহতরা হলেন হরিশচন্দ্র রায়, হীতেশ রায়ডাকুয়া, গুনেশ রায়, রৌশম ইসলাম ও মহম্মদ নজেল হক। আহতদের মধ্যে মহম্মদ নজেল হকের আঘাত গুরুতর। সকলেই জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতাল এবং ময়নাগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ঘুমপাড়ানি গুলি করে বিকেল পৌনে ৪টা নাগাদ চিতাবাঘটিকে বাগে আনেন বনকর্মীরা। চিতাবাঘটিকে লাটাগুড়ি প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। এদিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন বনদপ্তরের রামশাই মোবাইল স্কোয়াডের রেঞ্জার সুকদেব রায় সহ গরুমারার এডিএফও রিয়া গঙ্গোপাধ্যায় সহ বনকর্মীরা।

এদিন সকালে পাগলারবাড়িতে চা বাগানে শ্রমিকরা পরিচর্যার কাজ করছিলেন।সেই সময় চা বাগানের পাশেই স্থানীয় বাসিন্দা হীতেশচন্দ্র রায় ও পরে হরিশচন্দ্র রায়ের উপর ঝাপিয়ে পড়ে চিতাবাঘটি। এরপর চা বাগানে গা ঢাকা দেয় চিতাবাঘটি। এর মধ্যেই ঘটনাস্থলে ব‍্যাপক জনসমাগম হয়। কিছুক্ষণ বাঘটি ফের চা বাগানে ঢুকে লুকিয়ে থাকে।লোকজন চা বাগানের মধ্যে ছুটোছুটি করতে থাকে। এবার চিতাবাঘটি রৌশম ইসলাম ও গুনেশ রায়ের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। চিতাবাঘটি এবার স্থানীয় বাসিন্দা মহম্মদ নজেল হকের বাড়ির পাশে চা বাগানের মধ্যে আশ্রয় নেয়। কিছুক্ষণ পরে নজেল হক বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন। মহম্মদ নজেল হকের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। তাঁকে রক্তাক্ত অবস্থায় জলপাইগুড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

- Advertisement -