করোনায় মৃত বিশ্বের ৫৫ সাংবাদিক, বলছে সমীক্ষা

426

নিউইয়র্ক: সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনায় মৃতের সংখ্যা। সংক্রমণ রুখতে সারা বিশ্বে যোদ্ধার মতো লড়ছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। সংবাদকর্মীরাও নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। তাঁরা ঘরবন্দি মানুষকে দেশ-দুনিয়ার করোনা সম্পর্কিত নানা তথ্য জানতে সাহায্য করছেন। তবে পিইসি (প্রেস এমব্লেম ক্যাম্পেইন) নামে একটি সংস্থা জানিয়েছে, সংবাদ সংগ্রহের কাজে গিয়ে অনেক সাংবাদিক নিজেকে বিপদের মুখে ফেলছেন। পর্যাপ্ত সুরক্ষা সরঞ্জামের অভাবে তাঁরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

১ মার্চ থেকে এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ২৩টি দেশের ৫৫ জন সাংবাদিক করোনায় মারা গিয়েছেন। এছাড়া আরও অনেক সংবাদকর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। পিইসি জানিয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে সাংবাদিকরা অনেক সময় ঝুঁকি নিয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে যাচ্ছেন, তাঁরা ডাক্তার, নার্স, রোগীর সংস্পর্শে আসছেন খবর সংগ্রহের জন্য। এছাড়া বিশেষজ্ঞ ও রাজনৈতিক নেতাদেরও সাক্ষাতকার নিচ্ছেন। যার ফলে সাংবাদিকরাও করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন।

- Advertisement -

সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, ইকুয়েডরে সবথেকে বেশি সাংবাদিক করোনায় মারা গিয়েছেন। সেখানে ৯ জন সাংবাদিক করোনার শিকার হয়েছেন। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে ৮ জন, ব্রাজিলে ৪ জন, গ্রেট ব্রিটেন ও স্পেনে ৩ জন করে সাংবাদিকের মৃত্যু হয়েছে করোনায়।

পাশাপাশি সংস্থাটি জানিয়েছে, সেন্সরশিপ, ইন্টারনেট শাটডাউন, সংবাদকর্মীদের ওপর শারীরিক ও মৌখিক আক্রমণ এবং বিভিন্ন দেশে জারি করা জরুরি অবস্থা সংবাদপত্রের স্বাধীনতার ওপর আঘাত হেনেছে। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে ঘরবন্দি মানুষের কাছে সঠিক তথ্য পৌঁছে দেওয়াও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। সোশ্যাল ডিস্ট্যানসিং ঠিকমতো না মানা, মাস্ক না পরা, কোয়ারান্টিনে না থাকার কারণেই করোনা সারা বিশ্বে মহামারির আকার নিয়েছে বলে সংস্থাটি মনে করছে।