২ কিশোরীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৬ কিশোর

283
প্রতীকী

রামপুরহাট: দুই কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠল সাত কিশোরের বিরুদ্ধে। ঘটনায় ছয় কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আরও এক কিশোরের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

বীরভূমের রামপুরহাট থানার নারায়ণপুরের রানিগ্রামের ঘটনা। জানা গিয়েছে, রবিবার থেকে শুরু হয়েছে বাদনা পরব। সেই উপলক্ষ্যে ঝাড়খণ্ডের দুমকা জেলা থেকে দিদির বাড়িতে বেরাতে এসেছিল এক কিশোরী। শনিবার সন্ধ্যায় ওই কিশোরী ভাগ্নির সঙ্গে মুদিখানার দোকানে প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে যায়। সেই সময় সাত জন কিশোর তাদের মুখে কাপড় বেঁধে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। তবে বাড়ি ফিরে কিছু বলেনি দুই কিশোরী। কিন্তু পরের দিন অনেক বেলা পর্যন্ত মেয়ে ঘুম থেকে উঠছে না দেখে সন্দেহ হয় পরিবারের। মেয়েকে জিজ্ঞাসা করতেই সব প্রকাশ্যে আসে।

- Advertisement -

কিশোরীর বাবা বিষয়টি প্রথমে গ্রামের মোড়লকে জানান। মোড়ল জানিয়েছেন, পরব শেষ হলে সালিশি সভা বসানো হবে। এদিকে মেয়ের এবং শ্যালিকার শারীরিক সমস্যা হওয়ায় রবিবার সন্ধ্যায় তাদের রামপুরহাট মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল থেকেই পুলিশে খবর দেওয়া হয়। এরপরেই রামপুরহাট থানার পুলিশ দুই কিশোরীর জবানবন্দি নেয়। রাতেই গ্রামে ছয় কিশোরকে গ্রেপ্তার করে।

ঝাড়খণ্ড থেকে পরব উপলক্ষ্যে বেরাতে আসা এক কিশোরের সন্ধান পায়নি পুলিশ। জানা গিয়েছে, ধৃতদের বয়স ১১ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে। চারজন স্কুল পড়ুয়া। একজন পঞ্চম শ্রেণিতে পড়াশোনা করে। সোমবার তাদের সিউড়ি জুভেনাইল আদালতে তোলা হলে বিচারক প্রত্যেককে ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত বহরমপুর বোস্টেল স্কুলের হোমে রাখার নির্দেশ দেন। ২৭ তারিখ ফের তাদের আদালতে পেশ করানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সরকারি আইনজীবী শঙ্কর চক্রবর্তী বলেন, ‘ধৃতদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের মামলা রজু করা হয়েছে। পরবর্তী শুনানির দিন ধর্ষিতার পরিবারকে হাজির থাকার আদেশ দেওয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে ধৃতদের চারিত্রিক গঠনের খোঁজখবর নিয়ে আদালতে রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে পুলিশকে।’