জুলাইয়ে উত্তরবঙ্গে চালু হচ্ছে ৭টি সুফল বাংলার আউটলেট

255

তপনকুমার বিশ্বাস, ইসলামপুর: সারা রাজ্যের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, আলিপুরদুয়ারের মত জেলাতেও অন্তত একটি করে আউটলেট তৈরি করে ফেলেছে সুফল বাংলা। উত্তরবঙ্গে ৭টি সুফল বাংলার আউটলেট উদ্বোধন হবে জুলাই মাসে।

দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, লকডাউনের মধ্যেই রাজ্য সরকারের সুফল বাংলা প্রকল্প এক লাফে অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে। লকডাউন পর্বেই ৯৪টি নতুন আউটলেট খুলে ফেলেছে রাজ্য। ২৩ মার্চ পর্যন্ত রাজ্যে সুফল বাংলার দু’ধরনের মোট ১৩১টি আউটলেট ছিল। মে মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এসে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২২৫টি। দপ্তর সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, আগামী দিনে উত্তরবঙ্গের গ্রাহকদের কাছে আরও বেশি করে পৌঁছনোর উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

- Advertisement -

উত্তর দিনাজপুর জেলার কৃষি বিপণন দপ্তরের আধিকারিক সন্দীপন রায় বলেন, আমাদের জেলায় ইটাহারে একটি সুফল বাংলার স্টল রয়েছে। ইসলামপুর পুরসভা একটি স্টল করেছে। তবে সেটি আমাদের দপ্তর এখনও অধিগ্রহণ করেনি। অধিগ্রহণ করার জন্য পুরসভার প্রস্তাব উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কৃষি বিপণন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, চলতি বছরের শুরু থেকে রাজ্যে সুফল বাংলার মাধ্যমে সরকার নির্ধারিত দরে চাল, ডাল, তেল-মশলা, মাছ, মাংস, ডিমের মতো খাদ্যদ্রব্য, কাঁচা সবজি আমজনতার কাছে বেশি পরিমাণে পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। এই প্রকল্প রাজ্যে যথেষ্ট জনপ্রিয়তা পেয়েছে বলে দাবি সংশ্লিষ্ট বিভাগের আধিকারিকদের।

তাঁরা আরও জানান, উন্নতমানের রন্ধনসামগ্রী সরবরাহের উদ্দেশ্যে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে মউ চুক্তিও করেছে দপ্তর। পাশাপাশি নদিয়ায় ডাল তৈরির কারখানা, গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের সঙ্গে সবজির, মৎস্য দপ্তরের মাধ্যমে মাছের জোগান বাড়ানোর উদ্যোগও নেওয়া হয়। কিন্তু, পর্যাপ্ত আউটলেট না থাকায় সমস্যা ছিল।

এছাড়া করোনা আবহে রাজ্য জুড়ে লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় কাঁচা সবজি থেকে মশলা, মাছ-মাংস ন্যায্য দামে সরবরাহের প্রয়োজনীয়তার পাশাপাশি চাহিদা বৃদ্ধি পায়। সেই কারণে কৃষি বিপণন দপ্তর সুফল বাংলার আউটলেট বাড়ানোর ব্যাপারে উদ্যোগী হয়। তাই লকডাউন পর্বেই সুফল বাংলা রাজ্যজুড়ে প্রায় ১০০টির কাছাকাছি আউটলেট বানিয়ে ফেলেছে। যা একদিকে সময়পোযোগী, অন্যদিকে পরিষেবার নিরিখে মাইলস্টোনও বলে দাবি করেছে রাজ্য কৃষি বিপণন দপ্তর।

দপ্তরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, আউটলেটগুলি স্থায়ীর পাশাপাশি ভ্রাম্যমাণও করা হয়েছে। বর্তমানে রাজ্যে সুফল বাংলার ৪৭টি স্থায়ী ও ১৭৮টি ভ্রাম্যমাণ আউটলেট রয়েছে। উত্তরবঙ্গে প্রায় সব জেলায় একটি করে আউটলেট থাকলেও কলকাতায় ১১৯টি এবং উত্তর ২৪ পরগণা জেলায় ৬৬টি আউটলেট রয়েছে। এক্ষেত্রেও উত্তরবঙ্গ বঞ্চিতের তালিকায় থেকে গিয়েছে বলে দাবি করেছে ওয়াকিবহাল মহল।

এবিষয়ে রাজ্য কৃষি বিপণন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্ত বলেন, প্রকল্পটি আমাদের নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত। আমরা মুখ্যমন্ত্রীর দেখানো পথেই তাঁরই স্বপ্নের প্রকল্পকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। বাংলার মানুষকে বেশি করে সরকারি পরিষেবা দেওয়ার চেষ্টা করছি। সুফল বাংলা এই লকডাউন পর্বে মানুষের কাছে খাদ্যদ্রব্য পৌঁছনোর সবরকমের চেষ্টা করেছে। ৯৪টি নতুন আউটলেট খোলা হয়েছে। এছাড়া রাজ্যের সমস্ত জেলায় অন্তত একটি আউটলেট খোলা হয়েছে। উত্তরবঙ্গেকর ইসলামপুরের পাশাপাশি আরও ৭টি আউটলেট তৈরি হয়ে গিয়েছে। আগামী মাসে সেগুলি জনসাধারনের উদ্দেশ্যে খুলে দেওয়া হবে।