৭১০ কোটির কাজের টেন্ডার করা যায়নি, বিপাকে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর

189

চাঁদকুমার বড়াল, কোচবিহার : লকডাউনের ফলে ব্যাপক ধাক্কা খেয়েছে সরকারি কাজকর্ম। থমকে গিয়েছে সমস্ত রকম উন্নয়নমূলক কাজ। শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের এ বছরের ৭১০ কোটি টাকার কাজ শুরু হয়নি। তবে লকডাউন শিথিল হতেই কিছু কিছু প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে। চলতি আর্থিক বছরে অর্থাৎ ২০২০-২১ সালে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরে ৭১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। কিন্তু মার্চ মাসের শেষ থেকে লকডাউন শুরু হয়ে যাওয়ায় চলতি বছরের বরাদ্দের কোনও কাজের টেন্ডার করা সম্ভব হয়নি। তবে পুরোনো কাজগুলি ফের শুরু হয়েছে।

উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, ধীরে ধীরে কিছু কাজ শুরু হয়েছে। এগুলি সব পুরোনো কাজ। কোনওটা ১০ শতাংশ, কোনওটা পাঁচ শতাংশ বা বেশি বাকি ছিল। সব কাজ শেষ হলে ৪০০ কোটি টাকার কাজ সম্পূর্ণ হবে। তিনি বলেন, ২০২০-২১ আর্থিক বছরের কাজের টেন্ডার করা যায়নি। তার আগেই করোনার ফলে লকডাউন শুরু হয়েছিল। এবার ৭১০ কোটি টাকার কাজ বাজেটে অনুমোদন হয়েছিল। কোচবিহারের জেলা শাসক পবন কাদিয়ান জানান, সংখ্যালঘু উন্নয়ন সহ অন্যান্য দপ্তরের কাজ শুরু করার জন্য রাজ্যের অনুমোদন চাওয়া হয়েছে। অনুমোদন এলে কাজ শুরু হবে। তবে কোনও কাজই থেমে নেই। কাজ কিছু কিছু চলছে।

- Advertisement -

চলতি আর্থিক বছরে বাজেটে বরাদ্দের কাজ এপ্রিল ও মে মাস থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। তার মধ্যে উত্তরবঙ্গের আট জেলায় কয়েকটি সেতু, কালভার্ট, জলপ্রকল্প সহ অন্যান্য কাজ ছিল। কিন্তু করোনার ফলে সবকিছু থমকে যায়। মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে প্রায় ৪০০ কোটি টাকার চলতি প্রকল্পের কাজ বন্ধ করে দিতে হয়। পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হওয়ার পর ধীরে ধীরে পুরোনো কাজ কিছুটা শুরু হয়েছে। তবে নতুন প্রকল্পের কাজ কবে শুরু হবে, তা নিয়ে এখনও প্রশাসনের কর্তারা কিছু জানেন না। কারণ, এখন প্রকল্প তৈরি করে রাজ্য সরকারের কাছে অনুমোদনের জন্য পাঠাতে হবে। রাজ্য অনুমোদন দিলে অর্থ বরাদ্দ করা হবে। তারপর সেই প্রকল্পের টেন্ডার ও ওয়ার্ক অর্ডার করা হবে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, শুধুমাত্র উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের প্রকল্প নয়, জেলা পরিষদ বা পুরসভার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজও থমকে রয়েছে। প্রতি বছর জুন মাসে অন্যান্য প্রচুর প্রকল্পের কাজ শুরু হযে যায়। শুধুমাত্র জেলা পরিষদই কয়েক কোটি টাকার কাজ করে। কিন্তু এবার তা সবই থমকে গিয়েছে। জেলা প্রশাসনের কর্তারা বলেছেন, লকডাউনের জন্য দীর্ঘ তিনমাস কোনও কাজ হয়নি। এখন ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল হচ্ছে। এই অবস্থায় চলতি আর্থিক বছরের কাজ কবে শুরু হবে, তা নিযে ধোঁয়াশা রয়েছে। তবে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের কর্তারা বলেছেন, যে প্রকল্পগুলির কাজ মাঝপথে থমকে গিয়েছিল, সেগুলি শেষ হলে ৪০০ কোটি টাকার কাজ শেষ হবে। খুব শীঘ্রই সেগুলি শেষ হযে যাবে বলে তাঁরা আশা করছেন।