৫ মাস ধরে কিশোরীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৮

107
প্রতীকী

বেঙ্গালুরু: ১৫ বছরের এক কিশোরীকে পাঁচ মাস ধরে লাগাতার ধর্ষণের পর বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠল। ঘটনায় ১৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় মূল অভিযুক্ত কিশোরীর কাকিমা। তিনিই মেয়েটিকে ধর্ষকদের হাতে তুলে দেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কর্ণাটকের চিকমাগালুরের ঘটনা। গত ৩০ জানুয়ারি চিকমাগালুরের শ্রীঙ্গেরি থানায় অভিযোগ দায়ের করে জেলা শিশুকল্যাণ কমিটির চেয়ারম্যান। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ। ঘটনায় জড়িত ৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। বাকিদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

- Advertisement -

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্মৃতি জানান, ওই কিশোরী পাথর খাদানে কাজ করত। এক বাসচালকের সঙ্গে তার পরিচয় ছিল। অভিযোগ, ওই বাসচালকই মেয়েটিকে প্রথমে ধর্ষণ করে। তারপর তারই এক বন্ধুকে মেয়েটির ফোন নম্বর দেয় সে। সেই ব্যক্তিও কিশোরীকে ধর্ষণের পর তার ছবি, ভিডিয়ো তুলে ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিতে থাকে। তারপর এক এক করে ১৭ জন মিলে মেয়েটিকে ৫ মাস ধরে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ। এমনকি, মেয়েটিকে বিক্রিও করে দেওয়া হয়। আর এই ঘটনার মূল মেয়েটির কাকিমা। জানা যায়, মা মারা যাওয়ার পর কাকিমার সঙ্গেই তাঁর বাড়িতে থাকত ওই কিশোরী। কাকিমার বিরুদ্ধে কিশোরীকে অভিযুক্তদের হাতে তুলে দেওয়া এবং ধর্ষণে সাহায্য করার অভিযোগ রয়েছে। তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এই ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে আঙুল তুলেছেন কর্ণাটক কংগ্রেসের মুখপাত্র লাবণ্য। তাঁর অভিযোগ, এত বড় একটা কাণ্ডের পরও চুপ রয়েছে বিজেপি। এই ঘটনায় যাদের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে তাদের অনেকেই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত বলেও অভিযোগ। যদিও লাবণ্যের এই অভিযোগের পর কোনও প্রতিক্রিয়া আসেনি কর্ণাটক বিজেপির তরফে।