বাঁশের মাচা ভাঙাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, জখম ৮

40

বর্ধমান: বসার জন্য তৈরি বাঁশের মাচা ভাঙার ঘটনায় দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে জখম ৪ মহিলা সহ ৮ জন। বুধবার বিকালে ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের গলসির পারাজের করকডাল গ্রামে। পরে খবর পেয়ে গলসি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অন্যদিকে নিরাপত্তার স্বার্থে এলাকায় জারি রয়েছে পুলিশি টহল।

 

- Advertisement -

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, বাঁশের তৈরি একটি মাচা ভাঙার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার বিবাদের সূত্রপাত ঘটে। এদিন তা বৃহৎ আকার নেয়। মূহুর্তের মধ্যেই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে গ্রামের দুই গোষ্ঠী। স্থানীয়দের দাবি, সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়া ব্যক্তিদের এক পক্ষ ব্লক তৃণমূল সভাপতি জনার্দ্দন চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামী। অপরপক্ষ জেলার সংখ্যালঘু সেলের সহ-সভাপতি মহম্মদ মোল্লা গোষ্ঠীর অনুগামী।

ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূল নেতা জনার্দ্দন চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামী বলে পরিচিত সেখ মন্টু ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, গ্রামে থাকা বাঁশের তৈরি মাচা ভেঙে দেয় মহম্মদ মোল্লার লোকজন। এরপর এদিন বিকেলে বাড়ির পাঁচিল টপকে বাড়িতে ঢুকে মহিলা ও আত্মীয়দের বাঁশ দিয়ে মারধর করা হয়। দু’জন পুরুষ ও চারজন মহিলা জখম হন মারধরের ঘটনায়। যদিও মহম্মদ মোল্লার অনুগামী রাফিজুল মল্লিকের দাবি, পারিবারিক বিবাদের জেরে শেখ মণ্টুর পরিবারে সঙ্গে মারামারি হয়। মন্টুর পরিবারের লোকজন এদিন সশস্ত্র হামলা করেন তাঁদের ওপর। পরিবারের এক সদস্য সহ তাঁকেও মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। রফিজুলের বক্তব্য, ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও যোগ নেই। অন্যদিকে, গলসির কোনও তৃণমূলের নেতা এদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিতে চাননি। তবে পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।