প্রতিদিন ৮৭ জন ধর্ষিতা, বলছে ক্রাইম ব্যুরোর রিপোর্ট

558
প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: দেশে মহিলাদের ওপর অপরাধ ক্রমশ বাড়ছে। প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে উঠেছে ধর্ষণ। কোনও শাস্তিই তাতে লাগাম টানতে পারছে না। ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর (এনসিআরবি) পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৯ সালে প্রতিদিন গড়ে ৮৭ জন মহিলা ধর্ষিতা হয়েছেন। গতবছর মহিলাদের ওপর অপরাধ সংক্রান্ত মামলার সংখ্যা ছিল ৪,০৫,৮৬১ টি। ২০১৮ সালে সংখ্যাটা ছিল ৩,৭৮,২৩৬। এক বছরের মধ্যে নারীনিগ্রহের অপরাধ ৭.৩ শতাংশ বেড়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে রিপোর্টে। গত বছর নির্ভয়া মামলায় অপরাধীদের ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল। তারপরেও এই অপরাধ প্রবণতা কমেনি। ক্রাইম ইন ইন্ডিয়া ২০১৯ শীর্ষক রিপোর্টে বলা হয়েছে, ওই বছর প্রতি এক লক্ষ মহিলার মধ্যে ৬২.৪ শতাংশ অত্যাচারের শিকার হন। ২০১৮ সালে এই হার ছিল ৫৮.৮ শতাংশ। ২০১৮ সালে দেশে ধর্ষণের মামলা দায়ের হয়েছে ৩৩,৩৫৬টি। ২০১৭ সালে মামলার সংখ্যা ছিল ৩২,৫৫৯। মহিলাদের ওপর অপরাধ বলতে ধর্ষণের পাশাপাশি শ্লীলতাহানি, অপহরণ, গার্হস্থ্য হিংসার উল্লেখ রয়েছে রিপোর্টে।

মহিলাদের ওপর অপরাধ মামলার ৩০.৯ শতাংশ পারিবারিক হিংসা সংক্রান্ত, ২১.৮ শতাংশ শ্লীলতাহানির এবং ১৭.৯ শতাংশ অপহরণজনিত। শিশুদের ওপর অপরাধের সংখ্যা ২০১৮ সালের তুলনায় ২০১৯ সালে ৪.৫ শতাংশ বেড়েছে। রাজ্য হিসেবে বিচার করলে দেখা যাবে, কন্যাসন্তানরা সবচেয়ে বেশি অত্যাচারিত হচ্ছে উত্তরপ্রদেশে। শারীরিক নিগ্রহের পাশাপাশি যৌন হেনস্তার শিকার হচ্ছে তারা। উত্তরপ্রদেশের পরেই রয়েছে মহারাষ্ট্র। এনসিআরবি-র রেকর্ড অনুযায়ী, ২০১৯ সালে দ্য প্রোটেকশন অফ চিলড্রেন ফ্রম সেক্সুয়াল অফেন্সেস (পকসো) আইন-এ ৭,৪৪৪টি মামলা রুজু হয়েছে উত্তরপ্রদেশে। মহারাষ্ট্রে এই মামলার সংখ্যা ৬,৪০২।

- Advertisement -