২৪ ঘণ্টায় জলপাইগুড়ি জেলায় করোনা আক্রান্ত ৯২

506
ফাইল ছবি।

জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে ৯২ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। জেলায় মোট সংক্রামিতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৯৮। পাশাপাশি করোনা সংক্রামিত হয়ে জলপাইগুড়ি শহরে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। মৃতের নাম প্রশান্ত পাল (৭৭)। বাড়ি পুর এলাকার ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের দেশবন্ধুপাড়ায়।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, দু সপ্তাহ আগে ওই ব্যক্তি বাড়িতে পড়ে গিয়ে কোমড়ে চোট পান। এরপর স্থানীয় এক চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়িতে থেকেই তাঁর চিকিৎসা চলছিল। শ্বাসকষ্টজনিত কিছু সমস্যার কারণে ওই বৃদ্ধকে জলপাইগুড়ি জেলা হাসপাতালের সিসিইউতে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানে চিকিৎসা চলাকালীন তাঁর সংক্রমণ ধরা পড়ে ও তাঁকে শিলিগুড়ির একটি কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সোমবার গভীর রাতে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। মৃতের ভাই শ্যামল পাল বলেন, ‘সোমবার গভীর রাতে শিলিগুড়ির ওই হাসপাতাল থেকে ফোন করে আমাদের দাদার মৃত্যু সংবাদ জানানো হয়।’

- Advertisement -

অপরদিকে, এদিন জলপাইগুড়ি শহরে নতুন করে আট জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সংক্রামিতদের মধ্যে ১ নম্বর ওয়ার্ডের রাজবাড়ি এলাকার একজন, ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের নিউসার্কুলার লেনের একজন, কেরানীপাড়ার দুজন, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কদমতলা পাটগোলা এলাকার এক ব্যাংককর্মী রয়েছেন। এছাড়া ১০ নম্বর ওয়ার্ডের এক পুলিশ কর্মী ও ব্যারাকের অপর এক পুলিশ কর্মীর শরীরেও সংক্রমণ ধরা পড়েছে। পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে এক বিচারাধীন বন্দিও সংক্রামিত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। সংক্রামিতদের সকলকেই কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

রাজগঞ্জ ব্লকে ২৪ ঘন্টায় ৮ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সংক্রামিতদের মধ্যে মধ্যে ফুলবাড়ি ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের জামুরিভিটার একই পরিবারের চারজন রয়েছেন। এছাড়া ওই গ্রামের আরও একজন করোনা পজিটিভ। বাকি তিনজনের মধ্যে ডাবগ্রাম ২ গ্রাম পঞ্চায়েতের মাঝাবাড়ি এলাকার দুজন এবং শান্তিনগরের একজন রয়েছেন।

অপরদিকে, গত ২৪ ঘন্টায় ময়নাগুড়ি ব্লকে নতুন করে ২৯ জন সংক্রামিত হয়েছেন বলে খবর। সংক্রামিতদের মধ্যে ময়নাগুড়ি শহরে রয়েছেন ২০ জন, দোমহানি এলাকায় ২ জন, সাপ্টিবাড়ি এলাকায় একজন, ভোটপাট্টি এলাকায় ৪ জন, দক্ষিণ খাগড়াবাড়িতে ১ জন এবং টেকাটুলি এলাকায় ১ জন রয়েছেন। অন্যদিকে, মাল শহরে চারজনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সংক্রামিতদের মধ্যে শহরের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের ২ জন, ৯ এবং ১১ নম্বর ওয়ার্ডের ১ জন করে রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।