বরাকর নদীতে ছিটকে পড়ল গাড়ি, মৃত্যু ইসিএলের কর্মী এক যুবকের

150

আসানসোল: আসানসোলের বাংলা ঝাড়খন্ড সীমানা লাগোয়া বরাকর নদী থেকে সোমবার সকালে একটি গাড়ি সহ এক যুবকের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার রাতে বরাকর সেতু থেকে ওই গাড়িটি বরাকর নদীতে পড়ে যায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত যুবক ঝাড়খন্ডের ইসিএলের কুমারডুবি কোলিয়ারি বাসিন্দা রাহুল কুমার(২৯)। চিরকুন্ডা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাহায্যে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ধানবাদ পাটলিপুত্র মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠায়। পরে পুলিশ গাড়িটিকে জেসিবি দিয়ে নদী থেকে উপরে তোলে।

পুলিশ সূত্রে খবর, রাহুল কুমার রবিবার রাতে নিজে গাড়ি নিজেই চালাচ্ছিলেন। আচমকাই গাড়িটা দ্রুত গতিতে বরাকর ব্রিজ থেকে সরাসরি বরাকর নদীর মধ্যে পড়ে যায়। জলে গাড়ি সমেত ডুবে রাহুল মারা যান। রাহুল কুমার ইসিএলের শ্যামপুর বি-এর নিরসা কোলিয়ারিতে কর্মরত ছিলেন। গত কয়েকদিন ধরে তিনি মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। পরিবার সূত্রে  জানা গিয়েছে, বেশ কয়েক বছর আগে এই বরাকর নদীতে রাহুল কুমারের বাবা জলে ডুবে মারা গিয়েছিলেন।

- Advertisement -

চিরকুন্ডা থানার ইনচার্জ দিলীপ যাদব বলেন, ‘এটা আত্মহত্যা না দুর্ঘটনা তা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত বলতে পারব না। এই দুর্ঘটনার খবর পেয়ে নিরসার প্রাক্তন বিধায়ক অরূপ চট্টোপাধ্যায় এলাকায় পৌঁছান।  তিনি বলেন, ‘রাহুল কুমার ইসিএল কর্মী ছিলেন। কিছুদিন আগে কুমারডুবি কোলিয়ারি থেকে তাকে শ্যামপুর বি কোলিয়ারিতে বদলি করা হয়েছিল। মৃত যুবকের পরিবার নিয়মমতো ক্ষতিপূরণ ও একজন চাকরি পান তার জন্য ইসিএল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলব।