কেরলের ছায়া কর্ণাটকে, বিস্ফোরক খেয়ে মৃত্যু গোরুর

241

উত্তরবঙ্গ সংবাদ ডিজিটাল ডেস্ক: কেরলের পর এবার কর্ণাটক। মানুষের ফেলে রাখা বিষ্ফোরক খাবার ভেবে খেয়ে ফেলায় মৃত্যু হল একটি গোরুর। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকের মাইসুরু জেলার এইচডি কোটে এলাকায়।

অভিযোগ, বুনো শূকর মারার জন্য এইচডি কোটে এলাকার একটি খামারের কাছে কিছু বিষ্ফোরক ফেলে রাখা হয়েছিল। একটি গোরু খাবার ভেবে সেই বিষ্ফোরক খেয়ে নেয়। প্রাণীটির মুখের ভেতরেই তা ব্লাস্ট করে। এর ফলে গোরুটির মুখ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরে সেটির মৃত্যু হয়। ঘটনার জেরে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

- Advertisement -

উল্লেখ্য, এর আগে মে মাসের শেষদিকে ঠিক এভাবেই কেরলে মৃত্যু হয়েছিল একটি গর্ভবতী হাতির। সেসময় ফলের ভেতরে ফায়ার ক্র্যাকার অর্থাৎ বাজি পুরে বন লাগোয়া এলাকায় ফেলে রাখার অভিযোগ উঠেছিল একাংশ স্থানীয় বাসিন্দার বিরুদ্ধে। খাবারের খোঁজে লোকালয়ে এসে হাতিটি সেই ফল মুখের ভেতরে ঢুকিয়ে নেয়। মুখে পুরতেই ফলের ভেতরে থাকা বাজি ফেটে যায়। গর্ভবতী হাতিটির মুখ ও শুঁড় মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বাজির বিষ্ফোরণের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে তা গর্ভবতী হাতিটি সহ্য করতে পারেনি। ২৭ মে, ৪টা নাগাদ সেটির মৃত্যু হয়।

বনদপ্তরের আধিকারিক মোহন কৃষ্ণাণ গত ৩০ মে এবিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেন। তারপরই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।