শিলিগুড়ি পুরনিগমের নামে চলছে ফেসবুক পেজ, জানেন না পুর কমিশনার

288

শিলিগুড়ি : পুর কমিশনার সোনম ওয়াংদি ভুটিয়ার অজান্তেই শিলিগুড়ি পুরনিগমের নামে চলছে ফেসবুক পেজ। আর সেই পেজে বিভিন্ন পোস্ট নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। পুর কমিশনারের অজান্তে কী করে পুরনিগমের নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় পেজ চলছে তা নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। পাশাপাশি কোনও সরকারি দপ্তরের নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় পেজ চালাতে হলে সরকারিভাবে নোটিফিকেশন করতে হয়। এক্ষেত্রে তেমন কিছু না হওয়ায় বিতর্ক তৈরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসও প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে। পুর কমিশনারকে না জানিয়ে পেজ তৈরি করার বিরোধিতা করেছেন দার্জিলিং জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি রঞ্জন সরকার। যদিও পেজের বিষয়টি জানেন পুরনিগমের প্রশাসনিক বোর্ডের অন্যতম সদস্য শংকর ঘোষ। তবে কি পুরনিগমের প্রশাসনিক বোর্ড এবং আধিকারিকদের মধ্যে সমন্বয়ে অভাব রয়েছে? এই বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। বিষয়টি নিয়ে শংকর ঘোষ বলেন, পুরনিগমের এক কর্মী পেজটির দেখাশোনা করেন। ভুলবশত দু’জায়গায় কোভিড সংক্রামিতের পরিচয় দেওয়া হয়েছিল। সেটা সংশোধন করা হয়েছে। তবে পেজের অস্তিত্ব কমিশনারের না জানার বিষয়ে তিনি কিছু বলতে চাননি। পুর কমিশনার সোনম ওয়াংদি ভুটিয়া বলেন, পুরনিগমের একটি ওয়েসাইট রয়েছে। সেখানে আমাদের বিভিন্ন তথ্য আপলোড করা হয়। কিন্তু কোনও ফেসবুক পেজ রয়েছে বলে আমার জানা নেই। আমরা কোনও পেজে কিছু পোস্ট করছি না।

শিলিগুড়ি পুরনিগমের কাজকর্ম তুলে ধরার জন্যে বেশ কয়েক বছর আগেই ওয়েসাইট তৈরি করা হয়েছে। সেখানে পুরনিগমের বিভিন্ন কাজ, বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরা হয়। সরকারিভাবেই ওই ওয়েসাইট তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর পুরনিগমের করোনা সংক্রান্ত আপডেট দিতে ফেসবুকে শিলিগুড়ি এম সি নামে একটি পেজ শুরু করা হয়। পুরনিগমের এক কর্মী ওই পেজের দেখভাল করেন। প্রতিদিন কোন ওয়ার্ডে স্যানিটাইজেশনের কাজ হচ্ছে, পুরনিগমের বিভিন্ন নোটিশ সেখানে আপলোডও করা হচ্ছে। নিয়ম করে সরকারি তথ্য আপলোড করলেও পুর কমিশনারকে বিষয়টি না জানানোয় বিতর্ক দেখা দিয়েছে। এদিকে করোনা সংক্রামিত ব্যক্তির ঠিকানা, পরিচয়, বাড়ির ছবি আপলোড করায় বিতর্ক দেখা দিয়েছে। করোনা সংক্রামিত ব্যক্তির ঠিকানা ফেসবুক পেজে আপলোড করায় কিছুদিন আগেই শিলিগুড়ি পুলিশ বেশ কয়েকটি ফেসবুক পেজের অ্যাডমিনদের ডেকে সতর্ক করে দিয়েছে। তারপর সরকারি দপ্তরের পেজে এই ধরনের পোস্ট ঘিরে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক শুরু হতেই তড়িঘড়ি ওই দুটি পোস্ট মুছে ফেলা হয়েছে। দার্জিলিংয়ে জেলা শাসক এস পন্নমবলম বলেন, সংক্রামিতের তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় না দেওয়াই ভালো। আমি পুরনিগমকে বিষয়টি দেখতে বলছি।

- Advertisement -