দুটি কিডনি বিকল, স্ত্রীর চিকিৎসায় সাহায্যের আবেদন স্বামীর

237

তুফানগঞ্জ: দুটি কিডনি ৯০ শতাংশই বিকল। অন্তত একটি কিডনি না পালটালে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই। চিকিৎসার পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে অনটন। তুফানগঞ্জ ১ ব্লকের অন্দরানফুলবাড়ি ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের নেতাজিপল্লি এলাকার বাসিন্দা বছর ২৯-এর ছন্দা ভট্টাচার্যকে বাঁচাতে দিশেহারা স্বামী রমেন চক্রবর্তী।

পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, বিভিন্ন উৎসব অনুষ্ঠানে রান্নার কাজ করেন রমেনবাবু। তবে করোনা এবং লকডাউন পরিস্থিতিতে কাজ প্রায় বন্ধ হয়ে যায় তাঁর। এরপর থেকে কোনওরকমে জমানো টাকা দিয়েই সংসার চালাচ্ছেন তিনি। সেই জমানো অর্থও প্রায় শেষের পথে। সংসারে রয়েছেন সাড়ে তিন বছরের মেয়ে ও অসুস্থ স্ত্রী। এই পরিস্থিতিতে সংসার চালাবেন না কি স্ত্রীর চিকিৎসা করবেন, তা ভেবেই দিশেহারা রমেনবাবু। তিনি জানান, বেশ কয়েক বছর ধরে সুগারে ভুগছিলেন স্ত্রী ছন্দা। পাশাপাশি রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রাও মাঝেমধ্যে কমে যেত। স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে চলতি মাসের শুরুতে বেঙ্গালুরুতে স্ত্রীর চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন। বিভিন্ন রকমের পরীক্ষা নিরীক্ষার পর তাঁর স্ত্রীর কিডনির সমস্যা ধরা পড়ে। ছন্দার দুটি কিডনি ৯০ শতাংশই অকেজো বলে জানান চিকিৎসকরা। তড়িঘড়ি কিডনি প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন। কিন্তু আর্থিক সমস্যা থাকায় চিকিৎসা করাতে পারেননি তিনি। আপাতত কোচবিহার এমজেএন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে সপ্তাহে দু’দিন করে ডায়ালিসিস চলছে ছন্দার।

- Advertisement -

রমেনবাবু বলেন, ‘আমার ছোট্ট মেয়ের দিকে তাকিয়ে স্ত্রীকে বাঁচাতে কোনও ব্যক্তি বা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের তরফে কিডনি দান বা আর্থিক সাহায্য করা হলে উপকৃত হব।’