ভেঙে পড়ল পরিত্যক্ত জলাধার, বিতর্কে তৃণমূল

48

আসানসোল: ভোটের মুখে এলাকার জল সংকট মেটাতে পরিত্যক্ত জলাধারে জল তুলতে গিয়ে হল বিপত্তি। হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বিশাল জলাধার। মঙ্গলবার মধ্যরাতে ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোলের জামুড়িয়ায়। পানীয় জলের তীব্র সংকট রয়েছে জামুড়িয়ার ডোবরানা, ধসল, চিঁচুরিয়া এলাকায়। সেসব এলাকায় ভোটের আগে রাতারাতি পানীয় জল সরবরাহ করতে গিয়ে বিতর্কে জড়াল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্ব। পরিত্যক্ত জলাধারে জল ভরতে গিয়ে ভেঙে পড়ল ১ লক্ষ ৭৫ হাজার গ্যালনের বিশাল জলের ট্যাংক। তৃণমূলে কংগ্রেসের দখলে রয়েছে জামুড়িয়ার চিঁচুরিয়া পঞ্চায়েত। দিনের বেলায় এই ঘটনা ঘটলে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারত পাশাপাশি বহু ক্ষয়ক্ষতিরও আশঙ্কা ছিল। চিঁচুড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বিশ্বনাথ সাঙুইয়ের দাবি,  বাম আমলে এই জলাধারের সাহায্যে জল সরবরাহ করা হত এলাকায়। কিন্তু গত ১৫ বছরের বেশি সময় ধরে এই জলের ট্যাংক থেকে তাঁরা জল সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এই জল ট্যাংকটি ১৯৮৭ সালে তৈরি হয়েছিল। ২০০১ সাল পর্যন্ত এই ট্যাংক থেকে জল সরবরাহ হয়েছিল। পরে জলসংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় ট্যাংকটি খালি পড়েছিল। বাম আমলেই এই ট্যাংকটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে দেওয়া হয়েছিল। অভিযোগ, গত ১০ বছর ধরে নতুন ট্যাংক তৈরি করা হয়নি। কোনও ব্যবস্থা না নিয়ে ভোটের আগে ওই ট্যাংকে জল তোলার ফলেই ট্যাংকটি ভেঙে পড়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, এই জলের ট্যাংক চালু হলে এলাকায় জলের সমস্যা মিটে যেত। জলের ট্যাংক ভেঙে পড়ায় তাঁরা হতাশ।

- Advertisement -

তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বর দাবি, তারাই অজয় নদের জলপ্রকল্পের পাইপ লাইন মেরামত করিয়েছিলেন। বুধবার থেকে স্বাভাবিকভাবে জল সরবরাহ হত। কিন্তু জল ভরার সময় ট্যাংকটি ভেঙে পড়ল। এর জন্য দায়ি সিপিএম। আমরা নই। জামুড়িয়ার সিপিএম প্রার্থী ঐশী ঘোষ প্রশ্ন তোলেন, পরিত্যক্ত ঘোষিত হওয়া জলাধারে কেন জল তোলা হল? দিনের বেলায় দুর্ঘটনা ঘটলে জীবনহানির ঘটনা ঘটত। তার দায় কে নিত?