নয়াদিল্লি, ২০ এপ্রিলঃ কিছুদিনের মধ্যেই ফাইটার জেটের ককপিটে ফিরবেন ভারতীয বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। তিনি এখন পুরোপুরি সুস্থ। আগামী সপ্তাহে শারীরিক সক্ষমতার চূড়ান্ত পরীক্ষা নেবেন বেঙ্গালুরুর ইন্সটিটিউট অফ এয়ারোস্পেস মেডিসিনের কর্তারা। বায়ুসেনা সূত্রে জানা গিযেে, ছাড়পত্র মিললেই আবার যুদ্ধবিমান চালাতে পারবেন অভিনন্দন। বায়ুসেনার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, যুদ্ধে অসাধারণ পারদর্শিতা ও বীরত্বের জন্য তৃতীয় সর্বোচ্চ সামরিক সম্মান বীরচক্র দেওয়া হতে পারে অভিনন্দনকে।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ইতিহাস সৃষ্টি করেছিলেন ভারতীয বায়ুসেনার এই পাইলট। ওইদিন আকাশসীমা লঙ্ঘন করে একঝাঁক পাক এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ভারতে ঢুকে পড়েছিল। দেখামাত্র মিগ-২১ যুদ্ধবিমান নিয়ে ধাওয়া করেন পাক যুদ্ধবিমানগুলিকে। গুলি করে নামিয়ে দেন একটি এফ-১৬কে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। নিজের বিমানও ভেঙে পড়ায় পাক সেনার হাতে ধরা পড়ে যান অভিনন্দন।  টানা ৬০ ঘণ্টা পাক সেনার হেপাজতে থাকার পর নযাদিল্লির কূটনৈতিক চেষ্টায় ওয়াঘা সীমান্ত পেরিযে ভারতে ফেরেন অভিনন্দন।। বাহিনীর নিয়মানুযায়ী, অন্তত ১২ সপ্তাহ তাঁকে চিকিত্সকদের তত্ত্বাবধানে থাকতে হবে। শারীরিক ও মানসিক চূড়ান্ত পরীক্ষার পর আগামী মে মাসের মাঝামাঝি অভিনন্দনকে বিমানের ককপিটে দেখা যেতে পারে। তিনি আপাতত সপরিবারে রয়েছেন শ্রীনগরের ৫১ নম্বর স্কোয়াড্রনে। অবসরপ্রাপ্ত এয়ার মার্শাল পবন কুমার জানিয়েছেন, মান্ধাতা আমলের যুদ্ধবিমান নিয়ে অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান ধ্বংসের যে নজির অভিনন্দন সৃষ্টি করেছেন, তার জন্য কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয়। তিনি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে আবারও যুদ্ধবিমান চালাবেন, এটাই প্রত্যাশিত।