খোয়ারডাঙ্গার জনসভায় বিজেপিকে তোপ অভিষেকের

45

কুমারগ্রাম: বিধানসভা ভোটের চতুর্থ দফার প্রচারের শেষ দিন বৃহস্পতিবার তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কুমারগ্রামের খোয়ারডাঙ্গায় দলীয় প্রার্থী লিয়স কুজুরের সমর্থনে জনসভা করেন। হেলিকপ্টারে চেপে দুপুরের পর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কুমারগ্রামের খোয়ারডাঙ্গার জনসভায় পৌঁছোন। দলের তারকা প্রার্থী সোহম চক্রবর্তী ও সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর সফরসঙ্গী ছিলেন। বক্তাদের প্রত্যেকেই বিজেপিকে তুলোধোনা করার পাশাপাশি তৃণমূল প্রার্থীদের বিপুল ভোটে জেতানোর আহ্বান জানান।

ভাষণে অভিষেক বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে স্নেহধন্য লিয়স কুজুর অতি সাধারণ ঘরের ছেলে। আপনারা ওঁকে বিপুল ভোট দিয়ে জয়ী করুন। যে কৃতজ্ঞতায় আপনারা এতদিন আমাদের আবদ্ধ করে রেখেছেন সেই ঋণ আগামী পাঁচ বছর এলাকার উন্নয়নের মধ্য দিয়ে শোধ করব। আপনার এত গরমেও প্রচণ্ড কষ্ট সহ্য করে আমার কথা শোনার জন্য বসে আছেন। আপনাদের সকলকে আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এই ভোট শুধুমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তৃতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী করার ভোট নয়। এটা আমাদের অধিকার, দাবি, সম্মান, মর্যাদা দিল্লির বুক থেকে ছিনিয়ে এনে বাংলার মাটিতে সুপ্রতিষ্ঠিত করার ভোট।

- Advertisement -

বিজেপিকে তোপ দেগে অভিষেকের তোপ, আপনারা কেউ ১৫ লক্ষ টাকা পেয়েছেন? কালো টাকা ধ্বংস করতে নোটবন্দি করে দেশজুড়ে কোটি কোটি মানুষকে চরম হয়রানির মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কালো টাকা ধ্বংস হয়েছে কি? দুই কোটি চাকরি হয়েছে কি? ৪০০ টাকার রান্নার গ্যাস ৯০০ টাকা হয়েছে। বিজেপি বাংলার সংস্কৃতিকে অপমান করে। ভালোমতো বাংলা উচ্চারণ না করতে পারলেও মোদি সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখাচ্ছেন। আয়ুষ্মান ভারত পেতে এমন একটি শর্ত রয়েছে যেটি সাধারণ মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে। অন্যদিকে দিদির স্বাস্থ্যসাথী কার্ড সবার জন্য করা হয়েছে। কন্যাশ্রী, রূপশ্রী প্রকল্পের টাকা সরাসরি উপভোক্তাদের অ্যাকাউন্টে ঢুকে যাচ্ছে। চা সুন্দরী প্রকল্পে শ্রমজীবী চা শ্রমিকদের বাড়ি করে দেওয়া হচ্ছে। জয় বাংলা পেনশন প্রকল্পে ষাটোর্ধ্বদের হাজার টাকা দেওয়া হচ্ছে। রাজ্যের বাসিন্দাদের স্বার্থরক্ষায় দিদি এবারের ভোটে ১০টি অঙ্গীকার করেছেন। আপনারা তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিয়ে জয়ী করুন। সরকারিভাবে আগামী পাঁচ বছর আপনাদের বাড়িতে বিনামূল্যে র‌্যাশনসামগ্রী পেঁছে দেওয়া হবে।

তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক ঋতব্রত বন্দ্যোপাধ্যায়, দলের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি মৃদুল গোস্বামী, আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের সভাধিপতি শীলা দাসসরকার, আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের সভানেত্রী দীপিকা রায়, আলিপুরদুয়ার জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি প্রসেনজিৎ কর, তৃণমূল কংগ্রেস ছাত্র পরিষদের জেলা সভাপতি সমীর ঘোষ প্রমুখ এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন।