দুমাস ধরে জলের তলায় রাস্তা, ক্ষোভ

166

মুরতুজ আলম, সামসী : নিকাশির কোনো ব্যবস্থা নেই। দীর্ঘ দুমাস ধরে গ্রামের রাস্তা ডুবে আছে নোংরা জলে। রাস্তার জমা জল নিষ্কাশনের কোনো উদ্যোগও নেই। ওই নোংরা জলের ওপর দিয়ে রোজ গ্রামবাসীদের পাশাপাশি স্কুলপড়ুয়ারাও যাতায়াত করছেন। এনিয়ে এলাকায় ক্রমশ ক্ষোভ বাড়ছে। মালতীপুর বিধানসভার জালালপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার হজরতপুর দক্ষিণপাড়ার এমনই চিত্র। তাই গ্রামবাসীরা সমস্যা সমাধানের জন্য নিকাশি নালা নির্মাণের দাবিতে সরব হয়েছেন।

হজরতপুর দক্ষিণপাড়ার বাসিন্দা মহম্মদ সহিদুল্লাহ, আশরাফুল হক, রেজাউল করিম, মহম্মদ আতাউল্লাহ, আখতার আলম ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, গ্রামের ফজর মাওলানার বাড়ি থেকে প্রাক্তন প্রধান বাসেদ আলির বাড়ি পর্যন্ত প্রায় ৩০০ মিটার পাকা রাস্তায় নোংরা জল জমে রয়েছে গত দুমাস ধরে। বৃষ্টির জল এখনও রাস্তা থেকে নামেনি। তাই গ্রামবাসীদের পাশাপাশি স্কুল, মাদ্রাসার পড়ুয়ারাও ওই নোংরা জল ভেঙে যাতায়াত করতে বাধ্য হচ্ছেন। রাস্তায় জল থাকায় লুঙ্গি, প্যান্ট মুড়িয়ে চপ্পল, জুতো হাতে নিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে। রাস্তায় জমে থাকা দূষিত জলের ওপর দিয়ে যাতায়াত করতে গিয়ে নানা ধরনের অসুখবিসুখও হচ্ছে।

গ্রামবাসীরা আরও বলেন, এর আগে ওই রাস্তার পাশে একটি পুকুর ছিল। বর্ষার জল পুকুরে গিয়ে জমা হত। এই বছর বর্ষার আগে পুকুরটি মাটি ভরাট হওয়ায় রাস্তার জমা জল আর নামে না। তাই রাস্তার পাশে নিকাশি নালা নির্মাণের দরকার। নিকাশি নালা না থাকায় রাস্তার জমা জল উপচে আশপাশের বাড়িতেও ঢুকছে। গ্রামবাসীরা নিকাশি ব্যবস্থার স্থায়ী সমাধানের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন। গ্রামবাসীরা পঞ্চায়েত প্রধান, চাঁচল-২-এর বিডিও এবং জেলাপরিষদকে লিখিতভাবে জানিয়েছেন। গ্রামবাসীরা বলেন, প্রশাসনিক উদ্যোগে নিকাশি নালা নির্মিত না হলে জালালপুর চৌরঙ্গি মোড় অবরোধ করা হবে।

এই ব্যাপারে জালালপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মাসতারা বিবি বলেন, দক্ষিণ হজরতপুরে নিকাশি নালা নির্মাণের জন্য একটি স্কিম করে তা অনুমোদনের জন্য ব্লক প্রশাসনের কাছে পাঠানো হয়েছে। স্কিমটি অনুমোদন হয়ে অর্থ বরাদ্দ হলেই নিকাশি নালা নির্মাণের কাজ চালু করা হবে। চাঁচল-২-এর বিডিও অমিতকুমার সাউ বলেন, ওই গ্রামে নিকাশি নালা নির্মাণের বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে। এলাকার জেলাপরিষদ সদস্য উম্মেহানি বিবি বলেন, দক্ষিণ হজরতপুরে রাস্তায় জমা জল নিষ্কাশনের জন্য নিকাশি নালা নির্মাণের খুবই দরকার। যাতে শীঘ্রই নিকাশি নালা নির্মাণ করা হয়, সে ব্যাপারে তিনি ব্লক প্রশাসনকে জানাবেন।