ট্রেনিংয়ে অনুপস্থিত, ভোটকর্মীদের শোকজের সিদ্ধান্ত নির্বাচন দপ্তরের

161

রায়গঞ্জ: দ্বিতীয় পর্যায়ে ভোটকর্মীরা অনুপস্থিত। ট্রেনিংয়ে না আসায় শোকজের সিদ্ধান্ত নিল জেলা নির্বাচন দপ্তর। আগামীকাল অর্থাৎ সোমবার দ্বিতীয় পর্যায়ে কতজন ভোটকর্মীকে শোকজ করা হবে তা জানাবেন জেলা নির্বাচন দপ্তরের আধিকারিক। শোকজের চিঠি হাতে পৌঁছনোর দুদিনের মধ্যে যথোপযুক্ত জবাব দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারি কর্মী ও শিক্ষকদের। চিঠির জবাব সন্তোষজনক না হলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হতে পারে বলে নির্বাচন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে।

ভোটগ্রহণের কাজ পরিচালনার জন্য নির্বাচন কমিশনের চিঠি পেয়েছিলেন প্রত্যেকেই। তারপরেও নির্ধারিত দিনে তাঁদের খোঁজ মেলেনি। প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে এইভাবে গরহাজির থাকায় প্রায় ১৬০০ ভোটকর্মীকে চলতি মাসের ১ তারিখে শোকজ করেছিল জেলা নির্বাচন দপ্তর। দ্বিতীয় পর্যায়ে ট্রেনিংয়ে হাজির না হলে ১ ঘণ্টার মধ্যে শোকজ করার নির্দেশ দিলেন উত্তর দিনাজপুর জেলা শাসক তথা রিটার্নিং অফিসার অরবিন্দ কুমার মিনা। অতিরিক্ত জেলা শাসক সাধারণ অলঙ্কৃতা পান্ডে বলেন,”জেলায় ভোট কর্মীদের মধ্যে প্রথম পর্যায়ে ১৬০০ জন অনুপস্থিত ছিলেন। দ্বিতীয় পর্যায়ে সেই সংখ্যা বাড়তে পারে। এক ঘণ্টার মধ্যে তাদের শোকজের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। শোকজের জবাব সন্তোষজনক না হলে নির্বাচন বিধি মেনে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- Advertisement -

জেলাশাসক অরবিন্দ কুমার মিনা বলেন, ‘ভোটকর্মীরা যদি বিষয়টি হালকাভাবে নেয় তবে তাঁরা ভুল করবে। তাঁদের বিরুদ্ধে ইলেকশন কমিশন অফ ইন্ডিয়ার যে গাইডলাইন রয়েছে সেই মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ভোটকর্মীদের কোনো অসুবিধা হলে সমস্ত সাহায্য করা হবে আমাদের তরফে।‘

নির্বাচন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, সরকারি কর্মী ও শিক্ষকরা ভোট পরিচালনার কাজের চিঠি পেয়েছেন তাদের প্রত্যেকের প্রশিক্ষণ গ্রহণ বাধ্যতামূলক। কোন অসুবিধা থাকলে তা যুক্তি দিয়ে জানাতে হবে। শুধুমাত্র মেডিকেল সার্টিফিকেট জমা করলেই হবে না। ৯টি বিধানসভা কেন্দ্রের ৩ হাজার ৭৬টি বুথে ভোট গ্রহণের জন্য মহিলা সহ মোট ১৪ হাজার ভোটকর্মী নিযুক্ত করা হয়েছে। তারমধ্যে ৩৯১ মহিলা বুথের জন্য ১ হাজার ৫৬৫ জন মহিলা ভোটকর্মী এবং প্রায় ১২ হাজার পুরুষ ভোটকর্মী রয়েছে।