এসি পরিষেবা স্বাভাবিক হয়নি, মেডিকেলে মর্গের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ রোগীরা

175

শিবশংকর সূত্রধর, কোচবিহার : প্রায় তিন মাস হতে চললেও এমজেএন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গের পরিষেবা স্বাভাবিক হল না। এসি বিকল থাকায় মৃতদেহ থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। ফলে রোগী, তাঁদের আত্মীয়দের পাশাপাশি হাসপাতালের কাছ দিয়ে যাওয়া পথচারীরা সমস্যায় পড়েছেন। পর্যাপ্ত দেহ সেখানে রাখতে না পেরে বিপাকে পড়েছে কর্তৃপক্ষও। গত জানুয়ারি মাসের শুরুতে মর্গের উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন এসি মেশিনের পাইপ চুরি হয়ে যায়। ফলে এসিটি বিকল হয়ে পড়ে। তারপর থেকে সেই অব্যবস্থার মধ্যেই সেখানে মৃতদেহ রাখা হচ্ছে। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত না হওয়ায় দুই-তিনদিন পেরিয়ে গেলেই মৃতদেহ থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। হাসপাতালের এমএসভিপি ডাঃ রাজীব প্রসাদ বলেন, এসির কপার পাইপ চুরি হয়ে যাওয়াতেই এই সমস্যা হচ্ছে। নির্বাচনের জন্য মেরামতের টাকা আসতে দেরি হচ্ছে। সমস্যার মধ্যেই সেখানে মৃতদেহ রাখতে হচ্ছে।

২০১৯ সালের ৯ সেপ্টেম্বর ৫৩ লক্ষ টাকা ব্যয় করে এমজেএন মেডিকেলে অত্যাধুনিক মর্গের উদ্বোধন করা হয়। সেখানে ১৬টি মৃতদেহ রাখার ব্যবস্থা রয়েছে। উন্নত প্রযুক্তির ব্যবহার থাকায় দেহ পচে গেলেও মর্গের বাইরে দুর্গন্ধ বের হয় না। কিন্তু এত টাকা খরচ করে মর্গ তৈরি করা হলেও তার নিরাপত্তার অভাব রয়েছে বলে অভিযোগ। সেখানে চুরির ঘটনায় মর্গের পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে এখন কর্তৃপক্ষকে হিমসিম খেতে হচ্ছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহ মর্গে রাখার প্রয়োজন হলে যত দ্রুত সম্ভব, তা সেখান থেকে পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে অজ্ঞাতপরিচয় মৃতদেহ নিয়ে সমস্যা বাড়ছে। সেখানে একটি দেহ দু-তিনদিনের বেশি থাকলেই সেখান থেকে দুর্গন্ধ বের হতে শুরু করছে। বর্তমানে সেখানে দুটি মৃতদেহ রয়েছে। মর্গের পাশেই রয়েছে হাসপাতাল রোড। সেখানে বেশ কিছু ওষুধ ও অন্য দোকানপাট রয়েছে। তার পাশেই রয়েছে মাতৃমা বিভাগ। ফলে মর্গের পাশ দিয়ে প্রতিদিনই বহু মানুষকে যাতায়াত করতে হয়। দুর্গন্ধের জেরে তাঁরা সমস্যায় পড়ছেন। গরম যত বাড়বে ততই সেই সমস্যা আরও বাড়বে বলে তাঁরা আশঙ্কা করছেন। এসি বিকল হয়ে যাওয়ার পর তিন মাস পার হতে চললেও এখনও পর্যন্ত কেন সেটি মেরামত করা গেল না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রোগীর আত্মীয়রা। দ্রুত যন্ত্রটি ঠিক করে সমস্যা মেটানোর দাবি তুলেছেন তাঁরা। পথচারী গোপাল দাস বলেন, কয়েক বছর আগে মর্গ থেকে দুর্গন্ধ বের হত। এই রাস্তা দিয়ে যাওয়াই যেত না। তবে নতুন মর্গটি তৈরি করায় সেই সমস্যা আর হত না। কিন্তু কিছুদিন ধরে আবার একই সমস্যা হচ্ছে। কর্তৃপক্ষের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত।

- Advertisement -