জিসিপিএ-র তরফে ভারতভুক্তি সংযুক্তি দিবস পালন

481

কোচবিহার ব্যুরো: দ্য গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশন (জিসিপিএ)-র বংশীবদন বর্মনের সমর্থিত নেতৃত্বদের উদ্যোগে ভারতভুক্তি সংযুক্তি দিবস পালন করা হল। শনিবার মাথাভাঙ্গা দুই ব্লকের পারডুবি গ্রাম পঞ্চায়েতর কানিপাড়া এলাকায় যথাযোগ্য মর্যাদার সঙ্গে ভারতভুক্তি সংযুক্তি দিবস পালন করা হয়।

সংগঠন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন এলাকায় দ্বৈত পতাকা উত্তোলন করে ও দিনটির তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করা হয়। এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন জিসিপিএ কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা নারায়ণ বর্মন সহ ব্লক ও স্থানীয় নেতারা।

- Advertisement -

অন্যদিকে, এদিন নিশিগঞ্জে আমতলা নদীর ঘাট সংলগ্ন এলাকায় জিসিপিএ-র তরফে ভারতভুক্তি সংযুক্তি দিবস পালন করা হয়। উল্লেখ্য, ১৯৪৯ সালের ২৮ অগাস্ট ভারতের গভর্নর জেনারেলের সঙ্গে কোচবিহারের মহারাজা জগদ্দীপেন্দ্র নারায়ণ ভূপবাহাদূরের একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সেই চুক্তি ‘ভারতভুক্তি চুক্তি’ নামে পরিচিত। সেই চুক্তি অনুযায়ী কোচবিহার আজকের দিনে ভারতের সঙ্গে সংযুক্ত হয়। ১৯৪৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর ভারত সরকার কোচবিহারের সকল দায় দায়িত্ব নিজের হাতে তুলে নেয়। কোচবিহারকে প্রদেশরূপে পরিচালনার জন্য ভিআই নানজাপ্পা নামে এক ব্যক্তিকে চিফ কমিশনার করে কোচবিহারে পাঠানো হয়।

এই বিষয়ে গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশনের মাথাভাঙ্গা ২ ব্লক সম্পাদক পরিমল বর্মন বলেন, ‘আজকের দিনে কোচবিহার রাজ্য ভারতের সঙ্গে সংযুক্ত হয়। তাই কোচবিহারবাসীর কাছে এই দিনটি বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। তবে আমরা ভারতভুক্তি চুক্তি রূপায়ণের দাবি করছি। কিভাবে কোচবিহার রাজ্য থেকে জেলা হল সেই প্রশ্ন দীর্ঘদিন ধরে তুলে আসছি।’ এদিন জিসিপিএ-র তরফে ভারতের জাতীয় পতাকা ও জিসিপিএ-র পতাকা উত্তোলন করা হয়। পাশাপাশি দিনটির গুরুত্ব নিয়েও আলোচনা করা হয়।