আদালতের রায়ে মান্যতা, মন্ডপের বাইরে লাগানো হল বাঁশের ব্যারিকেড

239

দিনহাটা: সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে এবছরের মন্ডপ হবে দর্শকহীন এবং নো-এন্ট্রি জোন ঘোষনা করা হবে পুজো মন্ডপকে। পাশাপাশি মন্দির বাইরে লাগাতে হবে বাঁশের ব্যারিকেড। আর তাই আদালতের রায়কে মান্যতা দিয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকেই দিনহাটার একাধিক পুজোমন্ডপে দেখা গেল ব্যস্ততা। কেউবা মন্ডপের বাইরে বাঁশের ব্যারিকেড লাগাচ্ছেন তো কেউ আবার গন্ডি কাটছেন।

এদিন সেরকমই একটি বিগ বাজেট পুজো কমিটি শহিদ কর্ণার দুর্গাপুজো কমিটির মন্ডপে সামনে গিয়ে দেখা গেল, মন্ডপের ১০ মিটার দূরে লাগানো বাঁশের বেরিকেড এবং তাতে ঝুলছে নো-এন্ট্রি বোর্ড।

- Advertisement -

পুজো কমিটির কর্মকর্তা আনন্দ কর্মকার জানান, গতকাল হাইকোর্টের রায় শোনার পর আজ তড়িঘড়ি বাঁশের ব্যারিকেড লাগিয়ে তাতে নো-এন্ট্রি বোর্ড লাগানো হয়েছে। পাশাপাশি বাঁশের ব্যারিকেডের বাইরে যাতে দর্শনার্থীদের মধ্যে দূরত্ব বজায় থাকে সেজন্য সার্কেল আঁকা হয়েছে। তিনি আরও জানান দর্শনার্থীদের কোভিড নিয়ে সচেতন করতে মাইক যোগে প্রচার চলছে এবং আগত দর্শনার্থীদের মাস্কও দেবেন তাঁরা।

এদিন আরেক বিগ-বাজেট পুজো কমিটি গোসানিরোড সার্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটি (পুরাতন) এর সম্পাদক সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘আমরা প্রশাসনের গাইড লাইন মেনে তিনদিক খোলা মন্ডপ তৈরি করেছিলাম। এরপর সোমবারে কোর্টের রায় শোনার পর আমরাও মন্ডপের বাইরে ব্যারিকেড লাগাচ্ছি। এছাড়া আমাদের মন্দিরের সামনে অনেকটা জয়গা থাকায় দর্শনার্থীরা নির্দিষ্ট দূরত্বে দাঁড়িয়ে থেকেই পুজা দেখতে পারবে। একই পদক্ষেপ গ্রহন করেছে মদন মোহন বাড়ি সার্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটিও।‘

কমিটির সম্পাদক জয়ন্ত রায় জানান রায় কোর্টের মেনে তাঁরা সমস্ত রকম ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।