ন্যাকের রিপোর্টে গ্রুপ ডি’র তকমা পেল রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়

262

রায়গঞ্জ: গত ১১ মার্চ থেকে রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয়েছিল ৩ দিনব্যাপী ন্যাশনাল অ্যাসেসমেন্ট অ্যান্ড অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিলের পরিদর্শন। ন্যাকের ৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শন করার পর ডি গ্রেড পেয়ে নট অ্যাক্রেডিটেড হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কিছুটা হলেও হতাশ। তবে কর্তৃপক্ষ আশাবাদী যে ন্যাকের প্রতিনিধি দল যে বিষয়গুলোর উপর তাদের জোর দিতে বলেছেন তারা সেগুলোর উপর জোর দিয়ে গুণগত মান বাড়াতে সক্ষম হবেন।

সূত্রের খবর, বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকাঠামো, সেন্টার ডেভেলপমেন্ট, নিয়োগ ইত্যাদির উপর নম্বর কম পেয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ঠিক পাশেই নির্মীয়মান ১০ তলা বিল্ডিংয়ের যতটা জায়গা, বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ৩ তলা বিল্ডিংয়ের জায়গা তার তুলনায় অনেক কম। পাশাপাশি, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলে ও মেয়েদের জন্য একটি করে হোস্টেল রয়েছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেকটাই কম। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মী ও অধ্যাপকদের জন্য কোনও স্টাফ কোয়ার্টারও নেই। অন্যদিকে, অ্যাকাডেমিক ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের রিসার্চ ওয়ার্ক যেমন বাড়াতে হবে তেমনি তাঁদের স্কোপাস ইনডেক্সও বাড়াতে হবে। ন্যাকের মাধ্যমে ডি গ্রেড পাওয়ার কারণে আগামী ২০২৬ সাল পর্যন্ত রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় ইউজিসির কোনও গ্র্যান্ট পাবে না।

- Advertisement -

রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড.দুর্লভ সরকার বলেন, ‘ন্যাকের প্রতিনিধি দল আমাদের সাজেশন দিয়েছেন। আমরা আশাবাদী যে আগামীতে আমরা ভালো ফল করব। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকাঠামো উন্নয়নে সবদিকে আমরা নজর রেখে চলেছি।’ বিশ্ববিদ্যালয়ের ন্যাকের কো-অর্ডিনেটর তথা সায়েন্স ফ্যাকাল্টির ডিন ড.কালিশঙ্কর তিওয়ারি বলেন, ‘আমাদের উন্নতি করার সুযোগ দেওয়া হল। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করব যাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিকাঠামো ও অন্যান্য বিষয়ের উন্নতি সাধন করতে পারি।’