শীতলকুচি, ১০ মেঃ বিয়ের পাঁচ মাসের মধ্যেই নববধূকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে শীতলকুচির ছোটো ধাপেরচাত্রা গ্রামে। মৃত গৃহবধূর নাম  দিপালী বর্মন (১৮)। মৃতের বাবা দিলীপ বর্মন বলেন, ‘পাঁচ মাস আগেই আমার মেয়ের বিয়ে হয় ছোটো ধাপেরচাত্রা গ্রামের সুশান্ত বর্মনের সঙ্গে। বিয়ের পর থেকেই মেয়ের উপর অত্যাচার শুরু করে তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোক। শনিবার সন্ধ্যায় মেয়ের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় তাঁরা। খবর পেয়ে, সেখানে গিয়ে দেখি মেয়ে অর্ধদগ্ধ হয়ে উঠোনে পড়ে আছে।’ জানা গিয়েছে, প্রথমে তাঁকে মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁকে কোচবিহার এমজেএন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চার দিন চিকিৎসার পর বুধবার মারা যান দিপালী। বৃহস্পতিবার শীতলকুচি থানায় অভিযোগ দায়ের করে মৃতের বাবা। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।