শিলিগুড়ি, ১০ অক্টোবরঃ বিয়ে বাড়ি থেকে ফেরার পথে নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে দোষী সাব্যস্তদের যাবজ্জীবন কারাদন্ডের নির্দেশ দিল শিলিগুড়ি মহকুমা আদালত। পাশাপাশি অভিযুক্তদের এক লক্ষ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ডের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ি মহকুমা আদালতের বিচারক দেবপ্রসাদ নাথ এই রায় দিয়েছেন।

২০১৫ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারী রাতে খয়েরবাড়ির বাসিন্দা ওই নাবালিকা বন্ধুর সঙ্গে বিয়ে বাড়ি থেকে ফিরছিল। অভিযোগ, ডুমুরিয়া সেতুর কাছে দুই যুবক তাদের পথ আটকায় এবং নাবালিকার বন্ধুকে মারধর করে এবং নাবালিকাকে জোর করে তুলে নিয়ে যায় ওই যুবক। এরপর নদীর ধারে ডুমুরিয়া সেতুর নিচে নাবালিকাকে ধর্ষণ করে অভিযুক্তরা। পরের দিন ভোরবেলা কোনমতে নাবালিকা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে নিজের এক বান্ধবীর বাড়িতে আশ্রয় নেয়। পুরো ঘটনা বান্ধবীকে জানায়। ১৬ ফেব্রুয়ারী , ২০১৫ বান্ধবী এবং বান্ধবীর স্বামীর সহায়তায় খড়িবাড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ওই নাবালিকা।  সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ওই রাতেই এলাকার বাসান্দা সঞ্জয় কেরকেট্টা ও দীপক ভগতকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সেই থেকেই শিলিগুড়ি আদালতে মামলা চলছিল। বিভিন্ন ভাবে বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাও করে অভিযুক্তরা। অভিযোগ করলে সেইসময় নাবালিকাকে প্রাণে মেরে ফেলারও হুমকি দেওয়া হয়েছিল। বুধবার ওই মামলায় অভিযুক্তদের দোষী সাব্যস্ত করে আদালত। বৃহস্পতিবার সাজা ঘোষণা করা হয়।