উত্তরবঙ্গে টলিউডের ছোঁয়া মমতার, অন্তত দুটি আসনে তারকা প্রার্থী

208

দীপ্তিমান মুখোপাধ্যায়, কলকাতা : উত্তরবঙ্গের প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এবারের প্রার্থী তালিকায় খুব বেশি রদবদল না করলেও কয়েকটি আসনে চমক দিতে চলেছেন নেত্রী। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ মমতার কাছে সবচেয়ে বড় বাজি। এই বাজি জিততে তিনি যে খেলায় কোনও ফাঁক রাখতে চান না তা ইতিমধ্যে স্পষ্ট করে দিয়েছেন। ভোট অন অ্যাকাউন্ট ও ইস্তাহারের খসড়ায় উত্তরবঙ্গকে তিনি বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন। প্রার্থী তালিকা তৈরির ক্ষেত্রেও উত্তরবঙ্গকে প্রাধান্য দিয়েছেন মমতা। তিনি মনে করছেন, উত্তরবঙ্গের হারানো জমি ফিরে পেতে এখন থেকেই সম্ভাব্য প্রার্থীদের মাঠে নেমে পড়া প্রয়োজন। গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে তো বটেই, বুথস্তরেও প্রার্থীরা যাতে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যান সেই লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছেন দলনেত্রী। সাধারণ মানুষের ক্ষোভ, অভিমানের কারণ জেনে দ্রুত পদক্ষেপ করা ও প্রয়োজনে সাধারণ মানুষের পাশে থেকে ভোটারদের আস্থা অর্জন করতে দলীয় প্রার্থীদের নির্দেশ দিয়েছেন নেত্রী। তৃণমূল সূত্রে খবর, এবার উত্তরবঙ্গের ৩ মন্ত্রীই একই আসন থেকে লড়াই করবেন।

উত্তরবঙ্গের ৩ জন বিধায়কের মতিগতি নিয়ে তৃণমূল নেতৃত্ব এখনও সংশয়ে আছেন।  ভোটের দিন ঘোষণার পর তাঁরা দল ছাড়বেন কিনা, তা নিয়ে এখনও তৃণমূল নেতৃত্ব নিশ্চিত হতে পারছেন না। তাই ওই আসনগুলিতে বিকল্প প্রার্থী খুঁজে রেখেছেন নেত্রী। সেখানে বিশেষ চমক দেওয়া হতে পারে। অন্তত দুটি আসনে রুপোলি পর্দার নায়ক-নায়িকাদের প্রার্থী করার ব্যাপারে কথাবার্তা অনেকটাই এগিয়েছে। আলিপুরদুয়ারের কালচিনি আসনে বিমল গুরুংয়ের সঙ্গে পরামর্শ করে প্রার্থী প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত হয়েছে। জলপাইগুড়িতে দুটি আসনে প্রার্থী বদল করা হতে পারে। নাগরাকাটার বিধায়ক শুক্রা মুন্ডা ইতিমধ্যে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। ওই আসনে বিকল্প প্রার্থীও দলনেত্রীর খোঁজা হয়ে গিয়েছে। কোচবিহার দক্ষিণ আসনের বিধায়ক মিহির গোস্বামী বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় সেখানে কোচবিহারেরই এক দাপুটে তৃণমূল নেতাকে প্রার্থী করার ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিয়েছেন দলনেত্রী। ওই তৃণমূল নেতা যুব তৃণমূলের সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত। মেখলিগঞ্জ আসনেও প্রার্থী বদল করা হতে পারে বলে তৃণমূল সূত্রে খবর।

- Advertisement -

তৃণমূলের প্রবীণ সাংসদ সৌগত রায় বলেন, কে দল ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছে, আর কে আছে তা নিয়ে আমাদের দল চিন্তিত নয়। তৃণমূল বাংলায় বহু নেতা তৈরি করেছে। বিধানসভা নির্বাচনের প্রার্থী তালিকা নিয়ে দলনেত্রী ও শীর্ষনেতৃত্ব ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। ভোট ঘোষণা হলেই প্রার্থী তালিকা দলনেত্রী ঘোষণা করবেন। তৃণমূল সূত্রে খবর, উত্তরবঙ্গের ৫৪টি আসনের মধ্যে ইতিমধ্যে ২৫টি আসনে জয়ের ব্যাপারে প্রশান্ত কিশোরের টিম ও জেলা নেতৃত্ব দলনেত্রীকে নিশ্চিত করেছেন। আরও অন্তত ৮ থেকে ১০টি আসনে জয় সম্ভব। কিন্তু সেখানে বেশ কিছু প্রশ্ন রয়েছে। মূল প্রশ্ন দলের প্রার্থী নিয়ে গত মাসে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রশান্ত কিশোর উত্তরবঙ্গে গিয়ে দলের পরিস্থিতির সামগ্রিক পর্যালোচনা করেছেন। তারপর দলনেত্রীকে তাঁরা রিপোর্ট দিয়েছিলেন। তার কয়েকদিন আগে দলনেত্রী উত্তরবঙ্গে গিয়ে দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। তারপরই তিনি প্রার্থী তালিকা নিয়ে চড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তৃণমূল সূত্রে খবর, উত্তরবঙ্গ থেকে ফেরার পরেই দলের শীর্ষনেতাদের সঙ্গে মমতা কালীঘাটে বৈঠক করেছেন। সেখানে তিনি উত্তরবঙ্গের খসড়া প্রার্থী তালিকা নিয়ে আলোচনা করেন। বৃহস্পতিবার বুথস্তরের কর্মীদের নিয়ে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের সভা আছে। ওই সভায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও পিকে থাকবেন। ওই দিনই দক্ষিণ ২৪ পরগনায় দলনেত্রীর একটি কর্মসূচি আছে। সেই কর্মসূচি সেরে তাঁরও নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে থাকার কথা। সেখান থেকেই মমতা ভোট নিয়ে বার্তা দেবেন বলে দলের নেতারা আশা করছেন। কার্যত বৃহস্পতিবার থেকেই তৃণমূল পুরোদমে বিধানসভা ভোটের প্রস্তুতিতে নেমে যাবে।