বিসর্জন ঘাট পরিদর্শনে পুলিশ প্রশাসন

323

শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ির এয়ারভিউ মোড় সংলগ্ন লালমোহন মৌলিক নিরঞ্জন ঘাট, পার্বতী ঘাট সহ একাধিক ঘাট পরিদর্শন করলেন পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা। মঙ্গলবার দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পুন্নামবলাম, শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার সুমন্ত সহায় সহ পুলিশ প্রশাসনের পদস্থ আধিকারিকরা বিভিন্ন ঘাট ঘুরে দেখেন। বিসর্জনের প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য বেশ কিছু বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন আধিকারিকরা।

করোনার জন্য এবছর এমনিতেই পুজোর বিসর্জনকে ঘিরে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। ঘাটে মাস্ক ছাড়া কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। স্যানিটাইজারের আলাদা ব্যবস্থা থাকবে। পাশাপাশি শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দেওয়া হবে। সেদিক দিয়ে শিলিগুড়িতে প্রতিমা বিসর্জন প্রক্রিয়া সাদামাটা করার জন্য প্রশাসনের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দুটির বেশি গাড়ি নিয়ে বিসর্জনে অংশ নেওয়া যাবে না।

- Advertisement -

শিলিগুড়ির লালমোহন মৌলিক ঘাটে অধিকাংশ প্রতিমা বিসর্জন করা হয়। সেজন্য অন্যান্যবারের মতো এবছরও ঘাটে আঁটসাঁট পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে। পুলিশ সূত্রে খবর, ঘাটে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করে বিসর্জনের পর গাড়িগুলি সূর্যসেন পার্কের সামনের রাস্তা দিয়ে বের করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। সঙ্গে ঘাটে বাঁশের ব্যারিকেড বানিয়ে ওয়ান ওয়ে করার বিষয়ে ভাবনাচিন্তাও শুরু হয়েছে। নদীতে প্রতিমা বিসর্জন হওয়ার পর প্রতিমার কাঠামো আর্থমুভার দিয়ে তোলা হয়। এজন্য দুটি আর্থমুভার ঘাটে রাখা হবে। পুজোর ফুল, বেলপাতা সহ অন্যান্য সামগ্রী নদীতে ফেলা যাবে না। সেগুলি পুরনিগমের নির্দিষ্ট ভ্যাটে ফেলতে হবে। বিসর্জনের সময় নদীতে যাতে কোনও দুর্ঘটনা না ঘটে সেজন্য বিপর্যয় মোকাবিলা দল থাকবে। একইসঙ্গে ঘাটে উপস্থিত থাকবে দমকল বাহিনীও।