১০ ফেব্রুয়ারি কর্মীসভা মমতার, নিরাপত্তা ইস্যুতে বৈঠকে প্রশাসনিক কর্তারা

118

কালিয়াগঞ্জ: শিওরে নির্বাচন। তার প্রাক্কালে জোর প্রাচারে ঝাপিয়েছে ডান-বাম সব রাজনৈতিক দলই। প্রায় দিনই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের হেভিওয়েটদের আনাগোনো লেগেই রয়েছে। পিছিয়ে নেই তৃণমূলও। গেরুয়া শিবিরকে টেক্কা দিতে আসরে নেমেছে খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলতি মাসের ১০ তারিখ কালিয়াগঞ্জে কর্মীসভা করার কথা তাঁর। সেক্ষেত্রে ওই কর্মীসভার নিরপত্তা ইস্যুতে শনিবার তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন প্রশাসনিক কর্তারা।
এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রায়গঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সুমিত কুমার, জেলা আধিকারিক অর্ণব চট্টোপাধ্যায়, জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিক কার্তিকচন্দ্র মণ্ডল, বিডিও প্রসূনকুমার ধারা, স্থানীয় থানার আইসি দীপাঞ্জন দাস, জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভাপতি গৌতম পাল, ব্লক সভাপতি নিতাই বৈশ্য সহ আরও অনেকে।
দলীয় সূত্রে খবর, কালিয়াগঞ্জের চান্দলের ময়দানে কর্মীসভা করবেন তৃণমূল সুপ্রিমো। জানা গিয়েছে, কর্মীসভাকে সামনে রেখে ময়দানে মোট তিনটি মঞ্চ তৈরি হবে। সেক্ষেত্রে তোড়জোড়ে শুরু হয়েছে মঞ্চ বাঁধার কাজ। একইসঙ্গে চলছে অস্থায়ী হেলিপ্যাড নির্মানের কাজও।
তৃণমূল নেতাদের দাবি উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা মিলে প্রায় দেড় থেকে দুই লক্ষ তৃণমূলকর্মীর সমাবেশ হবে ওই কর্মীসভায়। এদিকে চান্দলের মাটিতে মুখ্যমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গিয়েছে। তাঁদের বক্তব্য, ‘এত দিন যাঁকে টিভিতে দেখেছি তাঁকে সামনে থেকে দেখতে পাব। আমরা খুবই আনন্দিত।’