২৭ ঘণ্টা পর হাথরসে ঢুকতে পারল সংবাদমাধ্যম

671
ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: অবশেষে হাথরসে ঢুকতে পারল সংবাদমাধ্যম। দীর্ঘ ২৭ ঘণ্টা পর আজ সকালে হাথরসে সংবাদমাধ্যমকে ঢোকার অনুমতি দেয় উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। তবে গোটা গ্রাম এখনও দুর্গের মত ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

হাথরস সদরের এসডিএম প্রেম প্রকাশ মীনা বলেন, সিট তদন্তকারী দল গ্রাম ছাড়ায় এখন কেবলমাত্র মিডিয়া অনুমোদিত প্রতিনিধিদের গ্রামে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে। উপরমহল থেকে আদেশ এলে অন্যান্য প্রতিনিধি দলকেও ঢুকতে দেওয়া হবে। নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদের ফোন কেড়ে নেওয়া বা তাঁদের ঘরে বন্দি করা সম্পর্কে সমস্ত অভিযোগ একেবারে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন তিনি। এদিকে আজ ফের হাথরসে যাবেন রাহুল। যেতে পারেন প্রিয়ঙ্কা গান্ধিও। দুপুর ২টোয় দিল্লিতে দলের সদর দপ্তর থেকে কংগ্রেস সাংসদরা রাহুল গান্ধির নেতৃত্বে হাথরসের উদ্দেশে রওনা দেবেন।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ১৪ সেপ্টেম্বর উত্তরপ্রদেশে হাথরাসে এক তরুণীর ওপর ঘটনা ঘটে। যা নিয়ে সারা দেশে তোলপাড় চলছে। উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে ওইদিন চার দুষ্কৃতীর দ্বারা ধর্ষিত হন এক তরুণী, এমনটাই অভিযোগ। তাঁকে মারাত্মক জখম অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরের দিন তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আলিগড়ের এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হলে সেখান থেকে তাঁকে দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

হাসপাতালে তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল। মঙ্গলবার হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়াইয়ে শেষমেশ হার মানেন তরুণী। ঘটনায় অভিযুক্ত চার জনকে পরে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। হাথরাস থানার ওসিকে বদলি করে পুলিশ লাইনস-এ পাঠানো হয়। নিগৃহীতার বাড়িতে পাহারারও বন্দোবস্ত করা হয়।

বুধবার সকালে ঘটনার তদন্তের জন্য স্পেশ্যাল ইনভেস্টিগেশন টিম বা সিট গঠন করেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। গঠিত তিন সদস্যের স্পেশ্যাল ইনভেস্টিগেশন টিমকে যত তাড়াতাড় সম্ভব তদন্তের রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। কোনও ভাবেই দোষীরা যাতে রেয়াত না পায় সেদিকে লক্ষ্য রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, মামলার শুনানি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে হবে।

এদিকে হাথরসের ঘটনায় উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ গতকাল হাথরসের পুলিশ সুপার, পুলিশের ডিএসপি, ইন্সপেক্টর সহ মোট ৫ জন আধিকারিককে সাসপেন্ড করেন। মুখ্যমন্ত্রীর সচিবালযে তরফে জানানো হয়েছে, প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টের ওপর ভিত্তি করে এসপি, ডিএসপি সহ একাধিক পুলিশ আধিকারিককে সাসপেন্ড করেছেন তিনি। এসপি এবং ডিএসপি-র নার্কো পলিগ্র‌্যাফ টেস্ট হবে বলেও জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর সচিবালয়।

বিশেষ তদন্তকারী দলের তরফে যে প্রাথমিক রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে, তাতে ওই পুলিশ আধিকারিকদের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে সাসপেন্ড করার সুপারিশ করা হয়েছিল। ওই পাঁচ পুলিশ আধিকারিকের পাশাপাশি হাথরসের ঘটনায় অভিযুক্ত এবং নির্যাতিতার পরিবারের সদস্যদেরও নার্কো পরীক্ষা করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

হাথরসের ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়ে যোগী টুইটারে লেখেন, উত্তরপ্রদেশে মা-বোনেদের সম্মান, স্বাভিমানের যাঁরা ক্ষতি করবেন তাঁদের বিনাশ সুনিশ্চিত। দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিও দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। উত্তরপ্রদেশের সরকার রাজ্যের সমস্ত মা-বোনেদের সুরক্ষা ও বিকাশের ব্যাপারে সংকল্পবদ্ধ।