৩০ বছরের শাপমোচন, ইপিএল চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল

429

লিভারপুল: শাপমোচন? হ্যাঁ, শাপমোচনই বটে! ৩০ বছর পর ইপিএল চ্যাম্পিয়ন হল মহম্মদ সালাহর লিভারপুল।

১৯৯০ সালে কেনি ডালগ্লিসের প্রশিক্ষণে শেষবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ সেরা হয়েছিল লিভারপুল। তার ৩০ বছর পর ফের একবার ইপিএল সেরা হল লিভারপুল। এবার জুরগেন ক্লপের হাত ধরে। প্রথম জার্মান কোচ হিসেবে ইপিএল জেতার প্রায় দোরগোড়ায় দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। ২৪ ঘণ্টা আগে তাঁর দল ক্রিস্টাল প্যালেসকে উড়িয়ে দেওয়ায় মহম্মদ সালাহ, সাদিও মানেরা কার্যত একটা হাত রেখেই ফেলেছিলেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ট্রফিতে।

- Advertisement -

https://twitter.com/LFC/status/1276261398608314368

আর টানটান উত্তেজক ম্যাচে চেলসি ২-১ গোলে ম্যাঞ্চেস্টার সিটিকে হারাতেই ৭ ম্যাচ বাকি থাকতেই নয়া রেকর্ড গড়ে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। এর আগে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ও ম্যাঞ্চেস্টার সিটির দখলে ৫ ম্যাচ করে বাকি থাকতেই খেতাব জিতে নেওয়ার নজির ছিল। সেটা ভেঙে দিলেন ক্লপের ছেলেরা। ৩১ ম্যাচে লিভারপুলের পয়েন্ট ৮৬।  অন্যদিকে, দ্বিতীয় স্থানে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পয়েন্ট ৩১ ম্যাচে ৬৩।

এর আগে ২০১৪ সালে ব্রেন্ডন রজার্সের প্রশিক্ষণে প্রায় খেতাব জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গেলেও চেলসির বিরুদ্ধে স্টিভেন জেরার্ডের কুখ্যাত পিছলে পড়া খেতাবের প্রত্যাশায় জল ঢেলেছিল। ২০১৫ সালে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে এসে ধীরে ধীরে লিভারপুলকে ফের গড়ে তোলার কাজ শুরু করেন ক্লপ।

গত বছর ইপিএল খেতাবের কাছাকাছি গেলেও পেপ গুয়ার্দিওলার ম্যান সিটির টানা দ্বিতীয়বার ইপিএল জয় আটকাতে পারেনি তারা। তবে টটেনহ্যামকে হারিয়ে ইউরোপ সেরা হয়েছিল লিভারপুল। তাই ইপিএল সেরা হতে এবার শুরু থেকেই ঝাঁপিয়েছিল লিভারপুল। তার ফলও মিলেছে একেবারে হাতেনাতে। সকলে এজন্য কৃতিত্ব দিয়েছেন কোচ জুরগেন ক্লপকেই।

এদিকে, প্রিয় দল ইপিএল সেরা হওয়ায় করোনা আতঙ্ক ভুলে আনন্দে মেতেছেন সমর্থকরা। করোনা পরিস্থিতির কারণে বাড়ির বাইরে জড়ো হয়ে আনন্দ প্রকাশ করা থেকে বিরত থাকতে বলা হলেও সেকথা কানে তোলেননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় সমর্থকদের আনন্দের পাশাপাশি লিভারপুল ফুটবলারদের সেলিব্রেশনের ছবি, ভিডিয়ো প্রকাশ্যে এসেছে। দেখা গিয়েছে, ট্রেন্ট আলেকজান্ডার-আর্নল্ড, ভার্জিল ভ্যান ডাইকরা মেতেছেন উদ্দাম নাচে।

অ্যালিসন, রবার্তো ফির্মিনো ও দেজান লভরানের সঙ্গে ছবি পোস্ট করে মহম্মদ সালাহ লিখেছেন, ‘সত্যি দারুণ এক অনুভতি। বিশ্বের সমস্ত প্রান্ত থেকে সমর্থকরা যেভাবে গোটা মরশুম আমাদের পাশে থেকেছেন তার জন্য ধন্যবাদ। আপনাদের জন্যই এটা সম্ভব হয়েছে।‘